অবশেষে আইনি লড়াইয়ে জিতলেন মেসি

নয় বছরের আইনি লড়াইয়ে অবশেষে জয়ের মুখ দেখলেন লিওনেল মেসি। ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) শীর্ষ আদালত রায় দিয়েছে, আর্জেন্টাইন খুদেরাজ নিজের নামকে এখন থেকে ‘ট্রেডমার্ক’ হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। খবর বিবিসির। ২০১১ সালে নিজের নাম ‘ট্রেডমার্ক’ হিসেবে নিবন্ধনের জন্য আদালতে আবেদন জানিয়েছিলেন মেসি।

ওই আবেদন চ্যালেঞ্জ করে একটি স্প্যানিশ সাইক্লিং ব্র্যান্ড। এই ব্র্যান্ডের নাম ‘ম্যাসি’, ইংরেজিতে যার বানান Massi (মেসির নামের বানান Messi) হলেও উচ্চারণে মিল আছে। ফলে তাদের পণ্যের ক্রেতারা বিভ্রান্ত হতে পারেন, এই যুক্তিতে মেসির আবেদন চ্যালেঞ্জ করেছিল তারা।

শুরুতে মেসির আবেদন চ্যালেঞ্জ করে সফল হয়েছিল সাইক্লিং ব্র্যান্ড ‘ম্যাসি’। কিন্তু পরে ব্যাপারটি ‘ইইউ’র জেনারেল কোর্ট’ এ নিয়ে যান মেসি। সেখানে সাইক্লিং ব্র্যান্ড এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের ইন্টেলেকচুয়াল ইন্টেলেকচুয়াল প্রপার্টি (বুদ্ধিবৃত্তিক সম্পদ) এর চ্যালেঞ্জ খারিজ হয়ে যায়।

কিন্তু তারা পরে ‘দ্য ইউরোপিয়ান কোর্ট অব জাস্টিস’-এ আপিল করার পর এবারের রায়ও এলো মেসির পক্ষেই। এই রায়ের ফলে নিজের নাম ‘ট্রেডমার্ক’ হিসেবে ব্যবহার করতে আর বাধা রইল না আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের। যে কোনো ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে নিজের নাম এখন থেকে ব্যবহার করতে পারবেন ছয়বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *