আইপিএলের যত কেলেঙ্কারি; জানলে অবাক হবেন আপনিও!

ক’রোনার মধ্যেই আরব আমিরাতের মাটিতে আজ থেকে শুরু হচ্ছে আইপিএলের ১৩তম আসর। ২০০৮ সাল থেকে শুরু হওয়া আইপিএলে যেমন অসংখ্য উজ্জ্বল অধ্যায় রয়েছে, ঠিক তেমনি টুর্নামেন্ট সাক্ষী থেকেছে বেশ কিছু ন্যক্কারজনক ঘটনারও, যা অবশ্যই কলঙ্ক করেছে আইপিএল ইতিহাসকে। গত ১২টি আইপিএলের এমনই কিছু অস্বস্তিকর অধ্যায় তুলে ধরা হল।

স্ল্যাপগেট:– আইপিএলের প্রথম সংস্করণ অর্থাৎ ২০০৮ সালেই ঘটেছিল এক বিতর্কিত ঘটনা। আইপিএলের ইতিহাসে যা অত্যন্ত লজ্জাজনকও বটে। কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের হয়ে তখন খেলতেন ভারতীয় দলের পেসার শ্রীশান্ত। তাঁকে মাঠে চড় মেরেছিলেন তৎকালীন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক হরভজন সিং। যদিও ব্যাপারটি নিয়ে যথেষ্ট ধোঁয়াশা রয়েছে। সঠিক কারণও অজানা। তবে টিভির পর্দায় শ্রীশান্তকে হাপুস নয়নে কাঁদতে দেখেছে গোটা দুনিয়া।

স্পট ফিক্সিং কান্ড:– ম্যাচ ফিক্সিং কেলেঙ্কারির ছায়া পড়ে আইপিএলেও। দুর্নীতির সঙ্গে রাজস্থান ও চেন্নাই দুই ফ্রাঞ্চাইজি দলের বেশ কিছু সদস্য যুক্ত থাকার প্রমাণ পায় লোধা কমিশন। ফলে দুই দলকে দু’বছরের জন্য সাসপেন্ড করা হয় আইপিএল থেকে।

দুর্নীতিতে জড়িয়ে ললিত মোদির অপসারণ:– ২০০৮ সালে তাঁর মাথা থেকেই বেরিয়েছিল আইপিএলের কনসেপ্ট। প্রতিযোগিতা জনপ্রিয় করতে তাঁর ভূমিকা অনস্বীকার্য। সেই ললিত মোদি ২০১০ সালে দুর্নীতির অভিযোগে সাসপেন্ড হন। তাঁকে সাসপেন্ড করে বিসিসিআই। পরে তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হয়। ফলে তাকে সারা জীবনের জন্য ক্রিকেট সংক্রান্ত কোনওরকম পদে বসার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে বিসিসিআই।

চিয়ার লিডাদের ঘিরে কালো অধ্যায় :– আইপিএলের বিনোদনের অন্যতম অঙ্গ চিয়ারলিডাররা। চার-ছয় বা উইকেট পতনের সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের নাচে উদ্বেলিত হয় গোটা স্টেডিয়াম। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আসা চিয়ারলিডার গ্যাব্রিয়েলা পাসকুয়ালতো চতুর্থ আইপিএল আসরে তাঁর প্রতি কিছু ক্রিকেটারের অশালীন আচরণের কথা প্রকাশ্যে আনেন। ম্যাচ শেষের পর পার্টিতে তাঁর সঙ্গে ক্রিকেটারদের কিছু আপত্তিজনক ব্যাবহারের কথা তিনি জানান। পরে তাঁকে আইপিএল থেকে বরখাস্ত করে ব্যাপারটা ধামাচাপা দেয়া হয়েছিল‌।

ওয়াংখেড়েতে শাহরুখের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা :– কলকাতা নাইট রাইডার্সের অন্যতম মালিক শাহরুখ খান ওয়াংখেড়ের নিরাপত্তারক্ষীর সঙ্গে অভব্য আচরণ করেন বলে অভিযোগ ওঠে। যদিও সেই দাবি খারিজ করেন শাহরুখ। পরে পাঁচ বছরের জন্য তাঁকে ওয়াংখেড়েতে নিষিদ্ধ করে মুম্বই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন।

লুক পমারব্যাচের অসভ্যতা:– রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের হয়ে কয়েক আসরে খেলেন লুক পমারব্যাচ। এই মারকুটে ব্যাটসম্যানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের একজন মহিলাকে হেনস্থার অভিযোগ ওঠে। গায়ে হাত তোলারও অভিযোগ ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে। তাঁকে পরে সাসপেন্ড করে আরসিবি।

চেন্নাইয়ে নিষিদ্ধ শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটাররা :– ২০১৩ সালে শ্রীলঙ্কার রাজনৈতিক অবস্থার কথা মাথায় রেখে তৎকালীন তামিলনাড়ু সরকার শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটারদের চেন্নাইয়ে আসার অনুমতি দেননি। নিরাপত্তাজনীত কারণে এমন পদক্ষেপ বলে জানানো হয়। ফলে ২০১৩ সালে কোনও দলের শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটাররা চেন্নাইয়ের চিপক স্টেডিয়ামে খেলতে পারেননি।

নিয়মকে বুড়ো আঙ্গুল কোহলির:– আরসিবি তথা বর্তমান ভারতীয় দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি ২০১৫ সালে বিসিসিআইয়ের নিয়ম ভাঙেন আইপিএল চলাকালীন। বৃষ্টির বিরতি চলছিল চিন্নাস্বামীতে। তখন খেলোয়াড়দের জন্য নির্ধারিত সীমানা ভেঙে নিজের বান্ধবী অনুষ্কা শর্মার সঙ্গে দেখা করেন তিনি। যদিও কোনও শাস্তি না দিয়ে সতর্ক করে তাঁকে ছেড়ে দেয় বিসিসিআই।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*