আইপিএলে চিয়ার লিডার থাকা নিয়ে নতুন তথ্য

শনিবার শুরু হতে যাচ্ছে বহুল কাঙ্খিত ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ-আইপিএলের ১৩তম আসর। দেরিতে হলেও ক্রিকেট ফিরছে, ভারতীয় সমর্থকরা নিশ্চয়ই খুশি। ক্রিকেট বিশ্বেরও আলাদা নজর থাকে এই টুর্নামেন্টটায়, কারণ বিশ্বের সব বড় বড় তারকাদের পদচারণা থাকে এই প্রতিযোগিতায়।

তাছাড়া, গ্ল্যামারের দিক থেকেও বিশ্বের সব ক্রিকেট প্রতিযোগিতা থেকে একেবারে আলাদা আইপিএল। সেই গ্ল্যামার কিংবা টানটান উত্তেজনা কি এবার থাকছে? করোনা পরিস্থিতিতে আইপিএল হচ্ছে না ভারতের মাটিতে। ৫৩ দিনব্যাপী আয়োজনের পুরোটা হবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে।

মাঠে প্রবেশ করতে পারবেন না দর্শকরা। শুরুতেই আমেজ হারাবেন ক্রিকেটাররা। কেবল দর্শকই নন, এবার থাকবেননা চিয়ার লিডাররাও। বাউন্ডারি কিংবা উইকেট পতনের পর ঝলমলে সুন্দরীদের দেখা যাবেনা বাউন্ডারি লাইনের পাশে। থাকবেনা ডামাডোল। আইপিএল কি আকর্ষণ হারাতে যাচ্ছেনা?

সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের এই আসর অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিল গেল মার্চে। তবে বিশ্বব্যাপী করোনার থাবায় অন্যান্য সব ইভেন্টের মতো পেছানো হয় এই আসরটিও। নানা ঝামেলা-নাটকীয়তা শেষে অবশেষে মাঠে গড়াতে যাচ্ছে আসরটি। এরইমধ্যে কঠোর নিয়ম-কানুনের বেড়াজাল ডিঙিয়ে আরব আমিরাতে পৌঁছেছেন ৮ দলের ক্রিকেটাররা।

১৯ সেপ্টেম্বর ১ম ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স বনাম চেন্নাই সুপার কিংসের ম্যাচের মাধ্যমে মাঠে গড়াবে আইপিএল। বিশ্বের সবচেয়ে ধনী টি-টোয়েন্টি আসরে এবার থাকছে না কোনো জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। প্রতিবছরের মতো ম্যাচ চলাকালীনও থাকছেনা চোখ ধাঁধানো কোন আয়োজন।

এতকিছুর পরও বিসিসিআইয়ের প্রত্যাশা, টিভিসেটের সামনে বসে দর্শকরা ঠিকই উপভোগ করবেন ম্যাচ। আকর্ষণ হারালেও, মাঠের খেলা জমে উঠবে বলে বিশ্বাস আয়োজকদের। তবে আয়োজনে এবার নানাধরণের বাধা থাকলেও, সম্প্রচার স্বত্ব থেকে বড়সড় অংকের আয় করছেন আয়োজকরা।

বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি যেমন বললেন, ব্রডকাস্টাররা এবারের আইপিএলে সবচেয়ে বেশি দর্শক আশা করছেন। কারণ কেউ যেহেতু মাঠে যেতে পারবে না, সবাই নিশ্চয়ই টিভিসেটের সামনে বসে খেলা দেখবেন। সবকিছুতেই ইতিবাচক কিছু থাকে।

তবে টুর্নামেন্টের মাঝামাঝিতে কিংবা শেষভাগের দিকে আইপিএলে দর্শক ফিরতে পারে বলে ইঙ্গিত দিলেন গাঙ্গুলি। তিনি বলেন, কোভিড এবং সংক্রমণের কারণে কাউকে আমরা কাছাকাছি যেতে দিতে পারি না। তবে আমরা হয়তো মাঠে ৩০ শতাংশ দর্শকের অনুমতি দিতে পারি।

সেক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্বটা বজায় রাখা সহজ হবে। সেক্ষেত্রেও তাদের টেস্ট এবং মাঠে প্রবেশের বিষয়ে সতর্কাবস্থা গ্রহণ করা হবে। সবকিছু আমরা বিবেচনা করছি আসলে। ক্রিকেটাররাও মনে করেন, চিয়ারলিডার কিংবা বাহ্যিক আয়োজনগুলো ছাড়াও জমে উঠবে আইপিএল। যেমনটা মনে করেন রাজস্থান রয়্যালস ব্যাটসম্যান রবিন উথাপ্পা।

তিনি বলেন, এবারের আসরটা বিশেষ কিছু হতে যাচ্ছে। আমরা সবাই স্বাভাবিক পরিস্থিতি ফিরে চাই। খেলাধুলা আপনাকে এমন একটা অনুভূতি দিবে। মনে হবে, সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে যাচ্ছে। এবারের আইপিএলে বড় একটি চমক থাকবে মাহেন্দ্র সিং ধোনির ফেরা।

এক বছর সবধরণের আলোচনার বাইরে থাকা ভারতের সাবেক অধিনায়ক আইপিএল শুরুর আগে হুট করে অবসরের ঘোষণা দিয়ে পুরো ক্রিকেট বিশ্বকে একটা ধাক্কা দেন। ধোনি-কোহলিদের হাত ধরে আসরটা জমে উঠলেই হয়তো মাঠের বাইরের নানা আয়োজন ভুলে থাকবেন দর্শকরা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*