আইপিএল খেলবেন না কামিন্স

বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফ করোনা আক্রান্ত হওয়ায় টুর্নামেন্টের মাঝপথেই স্থগিত হয়েছিল ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) এবারের আসর। তবে আগামী সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে আইপিএলের বাকি অংশ আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই)।

টুর্নামেন্টের বাকি অংশ মাঠে গড়ালেও সেখানে খেলতে দেখা যাবে না প্যাট কামিন্সকে। সম্প্রতি এক প্রতিবেদন প্রকাশ করে এমনই দাবি করেছে অস্ট্রেলিয়ান দৈনিক সিডনি মর্নিং হেরাল্ড। যদিও ঠিক কি কারণে তিনি খেলবেন না, তা খোলাসা করেনি অস্ট্রেলিয়ান দৈনিকটি।

আইপিএলের ১৪তম আসরে কলকাতা নাইট রাইর্ডাসের হয়ে মাঠ মাতিয়েছেন কামিন্স। চলতি আসর স্থগিত হওয়ার আগে কলতকাতার হয়ে সবগুলো ম্যাচ খেলেছেন অস্ট্রেলিয়ার এই পেসার। তবে নিজেকে সরিয়ে নেয়ার টুর্নামেন্টের বাকি অংশে তাঁর সার্ভিস পাবে না দলটি।

যা ভোগাতে পারে দুইবারের শিরোপা জয়ী দলটিকে। অভিজ্ঞতা ও পারফরম্যান্সের দিক থেকে বিদেশি ক্যাটাগরিতে পেসারদের তালিকায় পছন্দের তালিকায় সবার ওপরে ছিলেন ডানহাতি এই পেসার। এদিকে এ বছর তিনি কোন ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টে খেলবেন না বলে দাবি করেছেন তাঁরা।

সিডনি মর্নিং হেরাল্ডের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘পারিবারিক কারণে আসন্ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে বিশ্রামে থাকতে পারেন ডেভিড ওয়ার্নার ও প্যাট কামিন্স। বছরে একাধিকবার বাবলে থাকায় পর্যায়ক্রমে বাকিদেরও বিশ্রাম দেওয়া হতে পারে। মিলিয়ন ডলারের আইপিএলে চুক্তি থাকা সত্ত্বেও কামিন্স এ বছর আর কোন টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট খেলবে না।’

ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) ম্যানেজিং ডিরেক্টর আশলে জাইলস আগেই জানিয়েছিলেন, আইপিএলের কারণে সূচিতে নিজেদের পরিবর্তন আনার কোন পরিকল্পনা নেই। যে কারণে আইপিএল শুরু হলেও ইংল্যান্ডের ক্রিকেটারদের পাওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা।

কারণ সেই সময় সমান সংখ্যক তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলতে বাংলাদেশ সফরে যাবে ইংল্যান্ড। এরপর ঘরের মাঠে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ খেলবে তাঁরা। যদিও শনিবার বিসিসিআইয়ের সভা শেষে এক কর্মকর্তা জানিয়েছিলেন, তারকা ক্রিকেটারদের পেতে বিদেশি বোর্ডগুলোর সঙ্গে কথা বলবেন তাঁরা।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.