আগে ব্যাটিংয়ে নামানোর অনুরোধ করবেন সাইফ

বাস্তবতা ভালোমতোই বুঝতে পারছেন মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে তারকায় ঠাসা আবাহনীর হয়ে পাঁচ-ছয় নম্বরে ব্যাটিং করার সুযোগ হয়তো তার হবে না। তবুও অন্তত দুই-একটা ম্যাচে হলেও ব্যাটিং অর্ডারে আফিফ হোসেনের আগে নামানোর জন্য টিম ম্যানেজমেন্টকে অনুরোধ করবেন এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সদ্য শেষ হওয়া সিরিজে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ব্যাটিংয়ের সময় হেলমেটে বল লাগার পর আর বোলিং করতে পারেননি সাইফ। তার কনকাশন বদলি হিসেবে সুযোগ পান তাসকিন আহমেদ। সতর্কতার অংশ হিসেবে তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতেও খেলা হয়নি সাইফের।

টি-টোয়েন্টি সংস্করণের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ শুরু হচ্ছে সোমবার। এর আগের দিন মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে আবাহনীর অনুশীলনের ফাঁকে সাইফ জানালেন এখন ভালো আছেন তিনি। “আলহামদুলিল্লাহ অনেক ভালো। আমার মনে হচ্ছিল, শেষ ওয়ানডে খেলতে পারতাম। ফিজিও ঝুঁকি নেননি তাই খেলতে পারিনি।”

শ্রীলঙ্কা সিরিজের সময় সাইফ বলেছিলেন, জাতীয় দলে পাঁচ-ছয় নম্বরে ব্যাটিং করতে চান তিনি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাত নম্বরের ওপরে ব্যাটিংয়ের সুযোগ এখনও তার হয়নি। এবার আবাহনীর হয়ে সুযোগ হবে? ২৪ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডার অবশ্য বাস্তবিক সম্ভাবনা দেখছেন না। তবে সুযোগ পেলে তা দুই হাতে কাজে লাগাতে চান।

“সুযোগ আসবে না (পাঁচ-ছয় নম্বরে ব্যাটিং), এটাই বাস্তবতা। শুধু শুধু বলে লাভ নেই! ঘুরে-ফিরে সাতেই ব্যাট করতে হবে। অবশ্যই টিম ম্যানেজমেন্ট আফিফের আগে আমাকে নামাবে না। তারপরও এক-দুইটা ম্যাচে সুযোগ দেওয়ার জন্য তাদের অনুরোধ করব।”

“যদি দল সুযোগ দেয়, যেহেতু গতবার আবাহনীর হয়ে ব্যাট হাতে দারুণ অবদান রেখেছি। যদি উনারা মনে করেন তাহলে অবশ্যই, আমি ওপরে খেলতে আগ্রহী।”বোলিং তো করেনই, সাইফের লক্ষ্য ব্যাট হাতে ফিনিশারে ভূমিকা পালন করা। আর এই জায়গায় উন্নতির জন্য পর্যাপ্ত সুযোগ চান তিনি।

“সত্যি বলতে কিছুই করতে পারিনি (ফিনিশার হিসেবে)। উন্নতির শেষ নেই। উন্নতির কথা মুখে বললে হবে না। নিজের তাগিদ থাকতে হবে। ম্যাচ ও অনুশীলনে অনেক সুযোগ পেতে হবে। আজ বললাম আর এক সপ্তাহ বা মাসের মধ্যে সেরা ফিনিশার হয়ে যাব-এটা কঠিন।”

“হয়তো ঘরোয়া ক্রিকেটে নিজেকে কিছুটা প্রমাণ করতে পেরেছি। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ফিনিশারের ভূমিকা পালন করতে হলে আরও ভালো করতে হবে, আরও বেশি সুযোগ পেতে হবে, সেটা অনুশীলনে হোক বা ম্যাচে।”

গত বছর এক রাউন্ড হয়ে স্থগিত হয়ে যাওয়া টুর্নামেন্টেরই ধারাবাহিকতা এবারের প্রিমিয়ার লিগ। গতবার ৫০ ওভারের সংস্করণে হওয়া প্রথম ম্যাচে পারটেক্সের বিপক্ষে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৬৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল আবাহনী। সেখান থেকে মুশফিকুর রহিমের সেঞ্চুরি, মোসাদ্দেক হোসেনের ফিফটি ও সাইফের ১৫ বলে ৩৯ রানের ক্যামিওতে তিনশর কাছাকাছি পুঁজি পায় তারা। এবার তাই দলটির বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের আগে সতর্ক থাকার কথা জানালেন সাইফ।

“গতবার প্রথম ম্যাচে হোঁচট খেয়েছি এই মাঠেই, ৬০ (৬৭) রানে ৫ উইকেট পড়ে যায়। এরপর মোসাদ্দেক ও মুশফিক ভাই জুটি গড়েন, লোয়ার অর্ডারে আমিও দ্রুত ৪০ (৩৯) রান করি। ওই দিনের মতো বেঁচে যাই।”

“তাই তাদের হালকাভাবে নেওয়ার কিছু নেই। ঘরোয়া ক্রিকেটে সবাই ভালো খেলে। অনেকদিন ধরে খেলা নেই, সবাই ভালো খেলার জন্য মুখিয়ে থাকবে। আশা করি, জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ব।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.