আফগানিস্তানের নতুন সেনাপ্রধান মৌলভী ক্বারী ফাসিহ উদ্দিন!

আফ’গানিস্তানের নতুন সেনাপ্রধান হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন মৌলভী ক্বারী ফাসিহ উদ্দিন। তিনি দেশটির আর্মি চিফ অব স্টাফ হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান তা’লেবা’নের প্রধান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ।

পাকিস্তানের সামা টিভির অনলাইন জানায়, পাঞ্জশির অভিযানের সময় মৌলভী ক্বারী ফাসিহ উদ্দিনের মৃ’ত্যুর গু’জব ছড়িয়ে পড়ে। পরে তা’লেবান তা প্রত্যা’খ্যান করে তার নতুন ভিডিও প্রকাশ করে। তিনি দীর্ঘ দিন ধরে তালে’বানের সামরিক কমিশনের ডেপুটি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। তার নেতৃত্বে পাঞ্জশির ছাড়াও তা’লেবান বিভিন্ন অভিযানে সাফল্য পেয়েছে।

দিল্লি-ভিত্তিক থিংক ট্যাংক, অবজারভার রিসার্চ ফাউন্ডেশন জানায়, মৌলভী ক্বারী ফাসিহ উদ্দিন খুব দ্রুততার সঙ্গে তালেবানের শীর্ষ পর্যায়ে চলে আসেন। তিনি চীন-তাজিকিস্তান সীমান্তবর্তী বাদাকশান প্রদেশের ছায়া গভর্নর হিসেবেও পরিচিত ছিলেন। পাঞ্জশিরে মাসুদ বাহিনীকে পরাস্ত করতে তাজিকিস্তানের বংশোদ্ভূত ক্বারী ফাসিহ উদ্দিন বিশেষ ভূমিকা পালন করেছেন। তার পুরস্কার স্বরূপ তাকে তালেবানের নতুন সরকারে সেনাপ্রধান হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

অবজারভার রিসার্চ ফাউন্ডেশনের মতে, তা’লেবা’নকে দ্রুত ক্ষমতায় আনতে যে ২২জন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন তাদের গবেষণায় এসেছে তার মধ্যে ক্বারী ফাসিহ উদ্দিনও অন্যতম। সামা টিভির খবরে বলা হয়, এই মুহূর্তে ক্বারী ফাসিহ উদ্দিনকে তালে’বানের বিশেষ ‘ক্যারিশমেটিক নেতা’ হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকদের ধারণা, পাঞ্জশির জয় করে তিনি বীরত্বের পুরস্কার হিসেবে ওই পদ পেয়েছেন। প্রসঙ্গত, কাবুলে অন্তবর্তী সরকারের প্রধান হিসেবে পরবর্তী তালেবান সরকারের নেতৃত্ব দেবেন মোল্লা মোহাম্মদ হাসান আখুন্দ। প্রধানমন্ত্রী মোল্লা মোহম্মদ হাসান আখুন্দ তা’লেবানের সিদ্ধান্ত নির্ধারণকারী বিভাগ ‘রেবারি শুরা’র প্রধান।

তিনি গতবার তালেবান শাসিত আফগানিস্তানের উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন। তিনি বর্তমানে জাতিসংঘের কালো তালিকাভুক্ত। জাতিসংঘের জঙ্গি তালিকায় তার নাম রয়েছে অন্তর্বর্তী প্রধানমন্ত্রী মোল্লা মোহাম্মদ হাসান আখুন্দের। আর নতুন সরকারের উপপ্রধান হিসেবে স্থান পেয়েছেন তালেবানের আলোচিত নেতা আব্দুল গনি বারাদার। সূত্র: টুলু নিউজ, সামা টিভি, এএফপি ও ইন্ডিয়া টাইমস

Sharing is caring!