’আমি ছাড়া আর প্রশ্ন তুলবেই বা কে?’

Bangladesh's captian Mahmudullah (R) receives the tournament trophy from Bangladesh's cricket board president Nazmul Hasan Papon (L) after the fifth and final Twenty20 international cricket match between Bangladesh and Australia at the Sher-e-Bangla National Cricket Stadium in Dhaka on August 9, 2021. (Photo by Munir Uz zaman / AFP)

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম পর্বে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে হারের পর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের ব্যাটিং ব্যর্থতা নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন। সুপার-১২ নিশ্চিত হওয়ার পর এ নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

ফিরতি প্রতিক্রিয়ায় পাপন জানালেন, দলের সিনিয়রদের নিবেদন নিয়ে তিনি কখনোই প্রশ্ন তোলেননি। সম্প্রতি সময় টিভিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এমনটা জানান পাপন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট চলাকালে হুট করে অবসর নেয়ায় মাহমুদউল্লাহর সমালোচনাও করেন তিনি।

পাপন বলেন, ‘স্কটল্যান্ডের মতো আইসিসির সহযোগী সদস্য দেশের বিপক্ষে বাংলাদেশ অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে। এমন খেলা অপ্রত্যাশিত। ম্যাচ হারের পর যা বলেছি, আমি ওই কথায় এখনো অনড় আছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘সে (মাহমুদউল্লাহ) বলেছে যে, তাদের নিবেদন নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে।

কিন্তু কেউই এটা করেনি। আর আমি ছাড়া আর প্রশ্ন তুলবেই বা কে! এছাড়া বলা হয়েছে যে, তাদেরকে নাকি ছোট করে কথা বলা হয়েছে। আমার মনে হয় সে এটা আবেগি হয়ে বলছে। কারণ আমরা এর আগেও দেখেছি, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট চলাকালেই সে হুট করে অবসরের ঘোষণা দিল।

যেটা কোনো পেশাদারিত্বের মধ্যে পড়ে না।’ এর আগে গত ২১ অক্টোবর পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে জয় দিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার-১২ নিশ্চিত হওয়ার পর সংবাদ সম্মেলনে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন মাহমুদউল্লাহ।বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক বলেছিলেন, ‘আমরাও মানুষ, আমাদের অনুভূতি কাজ করে।

আমাদের পরিবার আছে। বাবা-মায়েরা টিভির সামনে বসে থাকে খেলা দেখার জন্য, সন্তানরা বসে থাকে। আমরা খারাপ খেললে তারা মন খারাপ করে। ফেসবুক এখন হাতের কাছে, সবারই মোবাইল আছে। সমালোচনা তো হবেই। কিন্তু সমালোচনার মাধ্যমে যখন কেউ কাউকে ছোট করে ফেলে তখন এগুলো খুব খারাপ লাগে।’

বাংলাদেশের ম্যাচের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত থাকেন পাপন। ম্যাচের টস, একাদশ থেকে শুরু করে সব বিষয়ে বিসিবির সর্বোচ্চ অভিভাবক নিজের মতামত দিয়ে থাকেন। সিনিয়রদের নিয়ে করা সমালোচনার পক্ষেই থাকছেন তিনি। মাহমুদউল্লাহর কথার খেই ধরে পাপন আরও বলেন, ‘ও (মাহমুদউল্লাহ) বলেছে আমরাও তো মানুষ।

কিন্তু এ দেশে যারা তাদের সমর্থক তারাও মানুষ। বিসিবিতেও মানুষ ছাড়া কেউ নেই। সুতরাং সবারই আবেগ আছে। কিন্তু একটা সহযোগী সদস্য দেশের কাছে অসহায় আত্মসমর্পণের পর সমালোচনা সহ্য করারও সামর্থ্য থাকা উচিত।’

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.