আর্জেন্টাইন ভক্তদের দারুণ সুখবর দিলেন মেসি

বার্সেলোনার হয়ে সাফল্যের ভাণ্ডার অনেক সমৃদ্ধ হলেও জাতীয় দলের হয়ে এখনও শিরোপা জেতা হয়নি মেসির। ২০০৭, ২০১৫ ও ২০১৬ সালের কোপা আমেরিকার ফাইনাল এবং ২০১৪ সালের ব্রাজিল বিশ্বকাপের ফাইনালে আর্জেন্টিনার হারে স্বপ্ন ভাঙে তার।

শেষ যে সম্ভাবনাগুলো আছে, এর একটি এবারের কোপা আমেরিকা। যদিও টুর্নামেন্ট হওয়া নিয়েই জেগেছে শঙ্কা। কলম্বিয়া ও আর্জেন্টিনা, দুই দেশের যৌথ আয়োজনে হওয়ার কথা ছিল আসর।

কলম্বিয়ায় সরকারবিরোধী আন্দোলন মাথাচাড়া দেওয়ায় সেখান থেকে টুর্নামেন্ট সরিয়ে নেওয়ার কথা কিছুদিন আগে জানায় দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল ফেডারেশন (কনমেবল)। আসর শুরুর মাত্র ১৩ দিন আগে রোববার সংস্থাটি জানায়, আসর হবে না আর্জেন্টিনায়ও।

নতুন আয়োজক এখনও ঠিক হয়নি। এদিকে লিওনেল মেসির আক্ষেপের নাম জাতীয় দলের হয়ে শিরোপা না জেতা। সর্বশেষ তিন আসরের দুটিতে ফাইনাল খেলেছে আর্জেন্টিনা। দুই বারই হেরেছে। অধিনায়ক লিওনেল মেসির অপূর্ণতাও বেড়েছে।

আসন্ন কোপা আসরকে সামনে রেখে নিজের দলের প্রশংসাই শোনা গেল মেসির মুখে। আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের ওয়েবসাইটে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রেকর্ড ছয়বারের বর্ষসেরা মেসি বলেন, ‘দলের সঙ্গে যোগ দিতে পেরে আমি খুশি।

আমরা এক অদ্ভুত ও ভিন্নরকম পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। আমরা ঐক্যবদ্ধ হচ্ছি, কঠোর পরিশ্রম করছি এবং বাছাইপর্বের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। আমি খুবই রোমাঞ্চিত এবং ভালো করার জন্য ক্ষুধার্ত। গত কোপা আমেরিকায় আমরা ভালো একটি ছাপ রেখেছিলাম।

কিন্তু এতেই আমরা খুশি হতে পারি না। আমরা উন্নতি করে যেতে চাই।’ তিনি আরও বলেন, ‘বাছাইপর্বে সর্বশেষ ম্যাচগুলোয় আমরা খুব ভালো খেলেছি। দুর্ভাগ্যক্রমে, এরপর অনেকটা সময় কেটে গেছে। মাঝে আমরা আবার খেলার জন্য একত্রিত হতে পারিনি।

যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আমাদের ছন্দ ফিরে পেতে হবে এবং উন্নতি করতে হবে। জাতীয় দলের হয়ে খেলা সবসময়ই বিশেষ কিছু। আমরা জিততে চাই, আর এটাই আমাদের লক্ষ্য। তরুণ ও অভিজ্ঞরা এর জন্য প্রস্তুত।

আমি মনে করি, শক্ত একটা ভিত নিয়ে আমরা খুব ঐক্যবদ্ধ একটা দল। লিওনেল স্কালোনি দায়িত্ব নেওয়ার পর এবং তার নেওয়া তরুণ খেলোয়াড়দের নিয়ে দলটা গড়ে উঠেছে। আমাদের সামনে থাকা চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলা করতে এমন শক্তিশালী দলই প্রয়োজন।’

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.