আলো ছড়াচ্ছে শরতের কাশফুল

আলো ছড়াচ্ছে শরতের দৃষ্টিনন্দন ধবধবে সাদা কাশফুল। এ ফুলের ছোঁয়ায় প্রায় সবার শরীর-মন জুড়িয়ে যায়। প্রতিদিনের অফিস আর যানবাহনের শব্দদূষণ থেকে রেহাই পেতে ঢাকার বুকেই পাবেন এমন জায়গা। রাজধানী ঢাকার খুব কাছে উত্তরার দিয়াবাড়ী এলাকায় ছড়িয়ে আছে সাদা কাশফুল। বালুমাটির বিশাল খোলা জায়গা দিয়াবাড়ী এখন ভ্রমণপিপাসুদের বেশ প্রিয় হয়ে উঠেছে।

প্রতিদিন কাশফুলের নির্মল হাওয়া উপভোগের জন্য সেখানে ভিড় করে সব বয়সী মানুষ। দিন শেষে পরিবার-পরিজন নিয়ে এখানে আসে তারা। কাশফুলের পাশাপাশি একটু দূরে নদে রয়েছে নৌকা। যে কেউ চাইলেই কম খরচে নৌকায় চড়ে ঘুরতে পারেন।

অনেকেই আবার জলকেলিতে মেতে ওঠেন। তবে শুক্র ও শনিবার ভিড় থাকে বেশি। রাজধানীর যে কোনো প্রান্ত থেকে সরাসরি সিএনজি ও বেবি ট্যাক্সি রিজার্ভ করে যাওয়া যায়। এ ছাড়া মিরপুর বেড়িবাঁধের সড়ক ধরে সিএনজি ও লেগুনায় যাওয়া যায়।

বর্তমানে চলছে ভরা বর্ষাকাল। আকাশে ভেসে বেড়াচ্ছে সাদা মেঘের ভেলা। নীল আকাশজুড়ে অলস মেঘের অবাধ বিচরণ। খ- খ- মেঘের নিরুদ্দেশ যাত্রা। রোদের ঝলকানির পাশেই মেঘের ছায়া। মেঘ আর রোদের কানামাছি খেলার মাঝে বৃষ্টিও অংশ নিচ্ছে।

এমন দিনে আপনাকে স্বাগত জানাতে কাশফুল ‘সাদা ডালি’ সাজিয়ে বসে থাকে। দক্ষিণা বাতাসে কাশফুলগুলো ঢলে ঢলে আপনার সঙ্গে কথা বলবে। আপনাকে আহ্বান জানাবে তার সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য। এমন দিনে কাশফুলের অপরূপ দৃশ্য সহজেই যে কারও চিত্তে দোলা দেবে। নাগরিক ব্যস্ততার মাঝেও একটু সময় করে ঘুরে আসতে পারেন কাশফুলের রাজ্য থেকে। তবে বিকালে যাওয়াই ভালো।

দিয়াবাড়ী এলাকায় সপরিবার ঘুরতে আসা চাকরিজীবী আলমগীর হোসেন বলেন, ‘এক কথায় অসাধারণ! ঢাকার মধ্যে যেন এক কাশফুলের রাজ্য। এখানে এলে যে কারও মন ভালো হতে বাধ্য।’ ঘুরতে এসে নিজের উচ্ছ্বাসের কথা প্রকাশ করেন তিনি। দিয়াবাড়ীর বাড়ি-ঘরহীন সড়ক ধরে ভিতরের দিকে যত যেতে থাকবেন, ততই আপনি মুগ্ধ হবেন।

সড়কের দুই পাশে কাশফুলগুলো মাথা নুয়ে আপনাকে স্বাগত জানাবে। এ ছাড়া গুচ্ছ গুচ্ছ কাশফুলের গাছগুলো দেখে মনে হবে ফুলগুলো সেজে আছে শুধু আপনাকে আনন্দ দেওয়ার জন্যই। শেষ প্রান্তের দুই দিকে থরে থরে সাজানো কাশফুল দেখে মনে হবে যেন আপনি দাঁড়িয়ে আছেন কাশফুলের রাজ্যে। যত দূর চোখ যায় ততটাই সাদার রাজ্য।

অন্য পাশে তুরাগ নদের স্বচ্ছ পানি। নদের পাড় ধরে কাশবন আর নীল স্বচ্ছ পানির মিলনমেলা। এখানকার বাসিন্দা নাজমুল আলম জানান, বর্ষার শেষ সময়টাতেই কাশফুল দেখা যায়। কাশবনে সূর্য ডোবার ঠিক আগ মুহূর্তে পশ্চিম আকাশে লালচে আভায় সাদা কাশফুলের সৌন্দর্য বেড়ে যায়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*