উত্তেজনার মধ্যেই মুসলিম দেশের সামরিক মহড়া!

ইরানের সেনাবাহিনী বড় ধরনের সামরিক মহড়া শুরু করেছে। হরমুজ প্রণালীর পূর্ব থেকে ভারত মহাসাগরের উত্তর ও লোহিত সাগরের কিছু অংশ পর্যন্ত বিস্তৃত এলাকায় এ মহড়া চলবে। দেশটির বিমানবাহী ইউনিট, বিশেষ বাহিনী এবং র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্রি’গেডস এ মহড়ায় অংশ নেয়।

আজ রবিবার এ তথ্য জানানো হয়েছে। কয়েকদিন আগে ওমান সাগরে ইরানের একটি তেলের ট্যা’ঙ্কার জব্দ করে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী। তারপর ইরানের আইআরজিসির নৌ সদস্যরা অভিযান চালিয়ে ওই ট্যাঙ্কার উদ্ধার করে। এর জেরেই এমন সামরিক মহড়ার আয়োজন করেছে ইরান।

রবিবার সকালে দেশটির সামরিক মহড়া শুরু হয়। এতে সৈন্য, জাহাজ, সাঁজোয়া যান, মনুষ্যবাহী ও চালকবিহীন বিমান, আ’ক্রম’ণাত্মক এবং প্রতিরক্ষামূলক উভয় ক্ষমতা সম্পন্ন ক্ষে’পণা’স্ত্র ও রাডার সিস্টেম অংশ নেবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ইরানের সেনাবাহিনীর কমান্ডার-ইন-চীফ আবদোলরহিম মুসাভি রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনকে বলেন, মহড়াটি হরমুজ প্রণালী, ওমান সাগর এবং ভারত মহাসাগরের উত্তর অংশের এলাকা জুড়ে অনুষ্ঠিত হবে। ম্যাক্রান উপকূল ছাড়াও সিস্তানের দক্ষিণপূর্ব প্রদেশে, বেলুচিস্তান এবং হরমোজগানের সাধারণ এলাকায় এই মহড়া অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি বলেন, আমাদের বাহিনী এ এলাকায় জড়ো হওয়ার পর শত্রুরা তাদের প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করছে। আজ থেকে আমরা শ’ত্রুর গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করার জন্য আমাদের প্রচেষ্টাকে আরো জোরদার করবো। সমুদ্রে স্পীডবোটের চালাচল, সৈন্যদের যু’দ্ধ হেলিকপ্টারে আরোহন এবং সৈকত এলাকায় অবতরণ করার জন্য বিমান থেকে প্যারাশুট পরে সেনা কমান্ডোরা লাফিয়ে পড়ছে এমন ভিডিও ফুটেজ সম্প্রচার করেছে ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন।

উল্লেখ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে উত্তেজনা, ইস’রায়েলের হু’ম’কি ও প্রতিবেশী দেশ আ’জারবাইজা’নের সঙ্গে মতবিরোধের মধ্যেই ইরানের সেনাবাহিনী এবং আইআরজিসি সাম্প্রতিক মাসগুলোতে দেশটির বিভিন্ন অংশে বেশ কয়েকটি বড় ধরনের সামরিক মহড়া চালিয়েছে। সূত্র: আলজাজিরা।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.