একাদশ-দ্বাদশের পরীক্ষায় নির্ধারণ হবে এইচএসসির ফল: শিক্ষামন্ত্রী

একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণি শেষ করার পর আগের মতো এইচএসসি ও সমমানের পাবলিক পরীক্ষা নেওয়া হবে না। একাদশ শ্রেণিতে বছর শেষে একটি ও দ্বাদশে আরেকটি পরীক্ষা নেওয়া হবে। এ দুটিই হবে পাবলিক পরীক্ষা। দুই পাবলিক পরীক্ষার ফল মূল্যায়ন করে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হবে।

এক্ষেত্রে ৭০ শতাংশ পরীক্ষাভিত্তিক ও ৩০ শতাংশ ক্লাস মূল্যায়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। আজ সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকালে প্রধানমন্ত্রীর কাছে জাতীয় শিক্ষাক্রমের রূপরেখা উপস্থাপনের পর দুপুরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ২০২৩ সাল থেকে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা (পিইসি) ও জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষা থাকবে না। তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত থাকবে না বার্ষিক পরীক্ষা। নতুন প্রস্তাবিত জাতীয় শিক্ষাক্রমে নবম-দশম শ্রেণিতে শিক্ষার্থীদের বিভাজন করা হবে না, কারিগরি শিক্ষা প্রাধান্য পাবে।

তিনি আরো বলেন, মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষা হবে শুধু দশম শ্রেণির পাঠ্যক্রমের ওপর। উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) এর ফলাফল হবে একাদশ ও দ্বাদশের চূড়ান্ত পরীক্ষার ফল মিলিয়ে। দীপু মনি জানান, সংক্রমণের হার দেখে চতুর্থ সপ্তাহ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নতুন রুটিন হবে। কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নির্দেশনা না মানলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নতুন প্রস্তাবিত জাতীয় শিক্ষাক্রমে নবম-দশম শ্রেণিতে শিক্ষার্থীদের বিভাজন করা হবে না, কারিগরি শিক্ষা প্রাধান্য পাবে। যা ২০২৩ সাল থেকে কার্যকর হবে। এর আগে সকালে বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে শিক্ষা কার্যক্রমকে সময়োপযোগী করার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, বিজ্ঞান প্রযুক্তিতে বিশ্ব যখন এগিয়ে যায়, তখন কোনোভাবে দেশ পিছিয়ে থাকতে পারে না।

গণভবনে সোমবার সকালে জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখার খসড়ায় উপস্থাপনের সময় প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশ দেন। এদিকে, করোনা মহামারির কারণে ৫৪৩ দিন বন্ধ থাকার পর গতকাল রোববার সকালে সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলেছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্লাসে বসার জন্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোয় শিক্ষার্থীদের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

রাজধানীর বেশ কয়েকটি স্কুলে শিক্ষার্থীদের শারীরিক তাপমাত্রা মাপা ও সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। রাজধানীর মিরপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে দ্য ডেইলি স্টারের সংবাদদাতা মহিউদ্দিন আলমগীর জানিয়েছেন, ‘এখানে ক্লাস শুরু হয়েছে আজ সকাল সাড়ে ৭টায়।

ক্লাস ফাইভ ও এসএসসি পরীক্ষার্থীরা ক্লাসে বসেছে।’ এর আগে থেকেই শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসতে শুরু করে। গেটে থার্মোমিটার দিয়ে তাদের শরীরের তাপমাত্রা মাপতে দেখা গেছে। স্কুলে ঢুকে তারা হাত ধুয়ে ক্লাসরুমে বসেছে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.