এমপিপুত্রের মৃ’ত্যু নিয়ে যা বলছে পরিবার!

রাজধানীর কাঁঠালবাগানে একটি ভবনের ৯তলার বারান্দা থেকে ‘লাফিয়ে পড়ে’ সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) শহিদুল ইসলামের ছেলে ব্যারিস্টার আসিফ ইমতিয়াজ খান জিসাদের (৩৩) মৃ’ত্যু হয়েছে। শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) ভোর সাড়ে ৪টার দিকে কলাবাগান থানাধীন কাঁঠালবাগান ফ্রি স্কুল স্ট্রিটের ১৬৩ নম্বর বাসায় এ ঘ’টনা ঘটে।

সং’কটাপন্ন অবস্থায় আসিফকে উ’দ্ধার করে প্রথমে স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে গেলে ভোর সাড়ে ৫টার দিকে চিকিৎসক তাকে মৃ’ত ঘোষণা করেন। শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে গণমাধ্যমের কাছে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন কলাবাগান থা’নার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পরিতোষ চন্দ্র। ওসি বলেন, এ ঘ’টনার ত’দন্ত চলছে।

তার স্ত্রী সাবরিনা শাহিদ নিশিতা। তাকে প্রেম করে বিয়ে করেন আসিফ। এই বিয়ে মেনে নেয়নি তার পরিবার। এ কারণে বাবাসহ পরিবার মিরপুরে থাকলেও স্ত্রীকে নিয়ে শ্বশুরবাড়ির বাসায় থাকতেন আসিফ। আসিফের শ্যালক সাইমন শাহিদ নিশাদ শীর্ষস্থানীয় একটি গণমাধ্যমকে জানান, চার বছর আগে আসিফ তার বড় বোন সাবরিনা শাহিদ নিশিতাকে প্রেম করে বিয়ে করেন।

আসিফের পরিবার এটি মেনে নেয়নি। এজন্য আসিফ কাঁঠালবাগান শ্বশুর বাড়িতেই থাকতেন। তাদের কোনো সন্তান নেই। নিশাদ আরও বলেন, আসিফ ও সাবরিনার সঙ্গে মাঝেমধ্যে পারিবারিক বিষয়াদি নিয়ে ঝ’গড়া হত। আসিফ মা’দকাস’ক্ত ছিলেন। চার মাস উত্তরায় একটি রি’হ্যাবেও ছিলেন তিনি।

নিশাদের ভাষ্য, ব্রৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) রাতেও আবারও স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝ’গড়া বাঁধে। একপর্যায়ে আসিফ ৯তলার বারান্দা থেকে রেলিংয়ের ওপর দিয়ে লাফিয়ে নিচে পড়েন। এদিকে আসিফের বাবা শহিদুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, আসিফ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী। মতিঝিলে দেশ ট্রেডিং করপোরেশনের লিগ্যাল অ্যাডভাইজার ছিলেন। তার শ্বশুর বাড়ির লোকজনই ভোরে খবর দেয় আসিফের অবস্থা ভালো না, তাকে ঢাকা মেডিকেলে নেয়া হয়েছে।

কলাবাগান থা’নার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পরিতোষ চন্দ্র জানান, খবর পেয়ে আমরা কাঠালবাগানের বাসায় যাই। সেখানে নি’হ’তের বাবা-স্ত্রীসহ স্বজনদের সঙ্গে কথা বলি। আসিফের স্ত্রীর ভাষ্য, ব্যারিস্টার আসিফ নিয়মিত বি’য়ার খেতেন। গতরাতেও খেয়েছেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে ম’নোমা’লিন্য হয়। আসিফ রাতে বারান্দায়ই বসা ছিলেন। শেষ রাতে আচমকা ৯ তলা থেকে লা’ফিয়ে পড়েন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*