ঐতিহাসিক চুক্তির পথে আমিরাত-বাহরাইন

অবশেষে ইসরাইলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্বাভাবিক করার লক্ষ্যে ঐতিহাসিক চুক্তি করতে যাচ্ছে আরব-আমিরাত এবং বাহরাইন। মঙ্গলবার ১৫ সেপ্টেম্বর হোয়াইট হাউজে ট্রাম্পের মধ্যস্থতায় তিন দেশের মধ্যে এই চুক্তিতে স্বাক্ষর হওয়ার কথা রয়েছে। এতে স্বাধীন ফিলিস্তিনি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন অনেকটাই ফিকে হয়ে গেলে। দুই আরব দেশের এমন কর্মকাণ্ডকে বিশ্বাসঘাতক অ্যাখা দিয়ে আসছে ফিলিস্তিন।

কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরা জানিয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপস্থিতিতেই হোয়াইট হাউসে চুক্তি স্বাক্ষরের মধ্যে দিয়ে দুই আরব দেশ বাহরাইন এবং আরব আমিরাতের সম্পর্ক স্বাভাবিক হতে হবে।

অনুষ্ঠানে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বিনইয়ামিন নেতানিয়াহু, আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ আবদুল্লাহ বিন জায়েদ আল-নাহিয়ান ও বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল লতিফ আল জায়ানি নিজ নিজ দেশের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করবেন।

আর এই চুক্তির মধ্যে দিয়ে তৃতীয় ও চতুর্থ আরব দেশ হিসেবে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনে অঙ্গীকারাবদ্ধ হচ্ছে। এর আগে ১৯৭৯ সালে মিশর এবং ১৯৯৪ সালে জর্ডান ইসরাইলের সঙ্গে শান্তি চুক্তিতে স্বাক্ষর করে। মধ্যপ্রাচ্যে ট্রাম্পের এমন উদ্যোগে আগামী ৩ নভেম্বরের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পের পক্ষে ভোট টানতে পারে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *