ওপেনিংয়ে রোহিত-ডি ককেই আস্থা জয়াবর্ধনের

আসন্ন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের (আইপিএল) মৌসুমে ওপেনিং জুটিতে পরিবর্তন আসছে না মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের। এই আসরের নিলামে ক্রিস লিনকে দলে ভেড়ালেও রোহিত শর্মা এবং কুইন্টন ডি ককই ইনিংস শুরু করবেন। বৃহস্পতিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্রধান কোচ মাহেলা জয়াবর্ধনে।

ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই এবারের আসরে মাঠে নামছে মুম্বাই। নিজেদের চতুর্থ শিরোপা জয়ের আসরে ১৬ ম্যাচের ১৫টিতে ওপেন করেছেন ডি কক এবং রোহিত। তাই জয়াবর্ধনে মনে করছেন ওপেনিংয়ে পরিবর্তন আনার কোনো প্রয়োজন নেই।

ওপেনিং ছাড়াও মুম্বাইয়ের হয়ে তিন নম্বরে এবং মিডল অর্ডারেও খেলেছেন রোহিত। ২০১৮ আইপিএলে নিয়মিত মিডল অর্ডারে নেমেছেন তিনি। তবে সেই আসরে প্লে-অফে জায়গা করে নিতে পারেনি মুম্বাই। পরের আসরে রোহিত ওপেনিংয়ে ফিরে আসায় চতুর্থ শিরোপাও যেতে দলটি।

দুবাইয়ে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে জয়াবর্ধনে বলেন, ‘লিনের অন্তর্ভুক্তি অবশ্যই স্কোয়াডের শক্তি বাড়াবে তবে আমরা ওপেনিংয়ে পরিবর্তন আনছি না। গেল মৌসুমে ওরা দারুণ খেলেছে। তাঁদের মধ্যে বোঝাপড়া ভালো, দুজনই অভিজ্ঞ এবং ধারাবাহিক। তাঁরা দুজনই নেতা, তাহলে যে জিনিসটা ঠিক আছে সেটাকে নাড়াচাড়া করবেন? আমরা আগের পরিকল্পনাতেই অটল আছি’ আরও যোগ করেন মুম্বাই কোচ।

গেল আইপিএলের দ্বিতীয় সেরা ওপেনিং জুটি ছিল রোহিত এবং ডি ককের। ১৫ ম্যাচে ৫৬৫ রান এই জুটিতে পেয়েছিল মুম্বাই। যেখানে ছিল ৫টি হাফ সেঞ্চুরি পার্টনারশিপও। সবচেয়ে ওপরে ছিল ডেভিড ওয়ার্নার এবং জনি বেয়ারস্টোর জুটি। হায়দ্রাবাদের হয়ে দুজন যোগ করেন ৭৯১ রান

ওপেনিং ইস্যুতে রোহিত শর্মা বলেন, ‘আমি গেল আইপিএলের পুরোটাই ওপেনিংয়ে খেলেছি, এবারও তাই করবো। দল হিসেবে সব পথই খোলা রাখতে চাই। দল যা চাইবে তা করতেও রাজি আছি। টপ অর্ডারে ব্যাটিং করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি, তাই এটা করে আসছি। ভারতের হয়েও যখন খেলি ম্যানেম্যান্টের নির্দেশ থাকে সব দরজা খোলা রাখার। এখানেও তাই করবো’ আরও যোগ করেন তিনি।

এবারের আইপিএলের নিলামে ক্রিস লিনকে উন্মুক্ত করে দিয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। বেস প্রাইজ ২ কোটি রুপিতে ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানকে কিনে নেয় মুম্বাই। কিন্তু লিনের সাম্প্রতিক ফর্ম তেমন নজরে আসার মতো নয়। সিপিএলে সেন্ট কিটসের হয়ে মাত্র ১৭.২৫ গড়ে রান করেছেন ১৩৮, সর্বোচ্চ ৩৪।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *