কালবৈশাখীর তান্ডবে উড়ে গেল ১০০ বাড়ি

নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার সোনাদিয়া ইউনিয়নে কালবৈশাখী ঝ’ড়ে ব্যাপক ক্ষ’য়ক্ষ’তি হয়েছে। ঝড়ে চারটি গ্রামের অন্তত শতাধিক কাচা ঘর-বাড়ী বিধ্বস্ত হয়েছে। এসময় ব’জ্রপা’তে শিশুসহ চারজন আ’হত হয়েছে। বুধবার (২৮ মে) গভীর রাতে আ’ঘা’ত হানে কালবৈশাখী ঝড়।

আ’হ’তরা হচ্ছেন, সোনাদিয়া ইউনিয়নের কেঞ্জাখালী গ্রামের জামাল উদ্দিনের মেয়ে প্রিয়া বেগম (৮), একই এলাকার জামাল উদ্দিনের ছেলে পিহাদ উদ্দিন (৬), জামাল উদ্দিন (৫০) ও আব্দুল মন্নান (৪৫)। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গভীর রাতে হঠাৎ করে প্রথমে বাতাস শুরু হয়। মুহূর্তের মধ্যে বাতাসের গতি বেড়ে কালবৈশাখী ঝড়ে রূপান্তরিত হয়। ঝড়ের আ’ঘাতে সোনাদিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম সোনাদিয়া, মাইজচরা, চরচেঙ্গা ও পশ্চিম মাইজচরা গ্রামের শতাধিক কাচা ঘরবাড়ী বি’ধ্বস্ত হয়। এছাড়াও কয়েকটি ঘরের উপরের চাল বাতাসে উড়ে চলে গেছে। এসময় দিক বিদিক ছুটোছুটি করতে গিয়ে ব’জ্রপা’তে ৪ জন আ’হত হয়েছে।

সোনাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম জানান, ক্ষ’তিগ্র’স্ত পরিবারের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে আলাপ করে এদের আর্থিক সহযোগিতা করা হবে। হাতিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম বলেন, কা’লবৈ’শাখী ঝ’ড়ে সোনাদিয়ার কয়েকটি গ্রামের কাচা ঘর-বাড়ী ও গাছ পালা বি’ধ্বস্ত হয়েছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের ক্ষ’তিগ্রস্তদের তালিকা করতে বলা হয়েছে। পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *