কোপা আমেরিকাঃ দেখা যাবে না আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল লড়াই

কোপা আমেরিকা নিয়ে নাটক যেন শেষ হয়েও হচ্ছে না। কলম্বিয়া-আর্জেন্টিনার যৌথভাবে এবার মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বে প্রতিযোগিতা আয়োজনের কথা ছিল। কিন্তু, অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে আয়োজক দেশ থেকে বাদ দেওয়া হয় কলম্বিয়াকে।

করোনাভাইরাস ভয়াবহ রূপ নেওয়ায় এরপর কাটা পড়ল আর্জেন্টিনার নামও। মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের এই টুর্নামেন্ট সরিয়ে নেওয়া হয় ব্রাজিলে। ১৩ জুন থেকে ব্রাজিলে কোপা আমেরিকা শুরু হওয়ার কথা। তবে যে কারণে আর্জেন্টিনা থেকে কোপা আমেরিকা সরিয়ে আনা হয়েছে একই কারণে বিপর্যস্ত ব্রাজিলও।

সরকারি হিসাব মতে, শুক্রবার দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় এক লাখ, মা’রা গেছে আড়াই হাজারের বেশি মানুষ। দৈনিক আক্রান্ত এবং মৃ’ত্যুর দিক থেকে বর্তমান সময়ে দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোর মধ্যে তারা শীর্ষে এবং বিশ্বের হিসাবে দ্বিতীয়। এ পর্যন্ত ব্রাজিলে এই ভাইরাসে মা’রা গেছে চার লাখ ৭০ হাজারের বেশি মানুষ।

করোনায় বিপর্যস্ত দেশের মাটিতে মহাদেশীয় লড়াইয়ে মাঠে নামতে বেকে বসেছে ব্রাজিলিয়ান ফুটবলাররা। এমন ভয়াবহ পরিস্থিতিতে ঘরের মাঠে কোপা আমেরিকা খেলতে মোটেও আগ্রহী নয় ব্রাজিলে জাতীয় দলের ইউরোপীয় ফুটবলাররা।

এছাড়া দলের কোচিং স্টাফ থেকে শুরু করে সকল খেলোয়াড়দের সাথে সিবিএফ প্রেসিডেন্টের মনোমালিন্যর কথা এসেছে ইএসপিএন ব্রাজিলে! ইএসপিএন ব্রাজিল বলেছে, কোপা আমেরিকা ব্রাজিলে অনুষ্ঠিত হবে, তা একদিন আগে প্রেসিডেন্টের সঙ্গে মিটিংয়েও জানতো না দলের কেউ;

দলের মতে খোদ সিবিএফ প্রেসিডেন্টই হয়তো খবর মিডিয়ার মাধ্যমে জেনেছে! ব্রাজিলের করোনা পরিস্থিতিতে অপরিকল্পিতভাবে এত বড় টুর্নামেন্ট আয়োজন বড় শঙ্কার মনে করছেন স্টাফ ও খেলোয়াড়রা। আর এমন সংবাদ যে সত্যি তার প্রমাণ মিলেছে খোদ ব্রাজিলিয়ান কোচ তিতের সংবাদ সম্মেলনে।

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে ইকুয়েডরের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে সংবাদ সম্মেলনে এ প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে কোচ বলেন, “তাদের (খেলোয়াড়দের) নিজের মতামত থাকতেই পারে। এটা প্রেসিডেন্টকে ব্যাখ্যা করে জানিয়েছে। পরে তারা জনগণের কাছেও এটা প্রকাশ করবে।

এ কারণেই আমাদের অধিনায়ক ক্যাসিমেরো এখানে আসেনি।” এই নিয়ে পরপর দুবারের মত ঘরের মাঠে কোপা আমেরিকা আয়োজন করতে যাচ্ছে ব্রাজিল। সবমিলিয়ে এর আগে পাঁচবার কোপা আমেরিকা আয়োজন করেছে ব্রাজিল এবং প্রতিবারই শিরোপা জিতেছে সেলেসাওরা।

দক্ষিণ আমেরিকার মহাদেশ সেরা ফুটবল প্রতিযোগিতাটির এবারের আসর হওয়ার কথা ছিল গত বছর। তবে বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ মহামারীতে তা এক বছর পিছিয়ে যায়। এবারের আসরে ব্রাজিল নিজেদের নাম প্রত্যাহার করে নিলে হয়তোবা অনেকের স্বপ্নভঙ্গ হবে। সেইদিক থেকে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল লড়াইও দেখা নাও যেতে পারে এবারের কোপা আমেরিকায়।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.