ঘূর্ণিঝড়ের আতঙ্কে জরুরি অবস্থা জারি

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটিসহ পূর্ব উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘হেনরি’। এরই মধ্যে নিউইয়র্ক রাজ্যে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আটলান্টিকে সৃষ্ট এই ঝড় রোববার (২২ আগস্ট) আ’ঘা’ত হা’নতে পারে। ঝ’ড়ের কারণে তীব্র বাতাস বয়ে যেতে পারে। এ ছাড়া আক’স্মিক বন্যা ও জ’লোচ্ছ্বাসের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

আটলান্টিক মহাসাগরে সৃষ্ট হারিকেন ক্রমেই ধেয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্রের পূর্ব উপকূলের দিকে। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে এরই মধ্যে বাড়তে শুরু করেছে বাতাসের তীব্রতা। সময় যতই গড়াচ্ছে ততই উদ্বেগ আর চিন্তার ভাঁজ পড়ছে উপকূলের বাসিন্দাদের মধ্যে। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার বলছে, ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়ে হারিকেন হেনরি নিউইয়র্ক, কানেটিকাট,

মেইন, ম্যাসাচুসেটস, নিউ হ্যাম্পশায়ার ও রোড আইল্যান্ডে রোববার নাগাদ আঘাত হানতে পারে। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঘণ্টায় ১২০ কিলোমিটার বেগে নিউইয়র্ক ও নিউ ইংল্যান্ডের ওপর দিয়ে বয়ে যেতে পারে হারিকেনটি।এ সময় কিছু এলাকায় ২৫ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হতে পারে। এ ছাড়া তিন থেকে পাঁচ মিটার পর্যন্ত জলোচ্ছ্বাসও হতে পারে।

তীব্র ঝড়ো বাতাসের কারণে কয়েক লাখ মানুষ বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় থাকতে পারে বলে সতর্ক করা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় এরই মধ্যে জরুরি অবস্থা জারি করেছেন নিউইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ড্রু ক্যুমো। তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড় আ’ঘা’তের আগে আমরা সব ধরনের প্রস্তুতি রাখতে চাই। পরিস্থিতি মোকাবিলায় যেন কারো গাফিলতি না থাকে।

হারিকেন হেনরি এখন নিউইয়র্ক উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে। তখন ক্যাটাগরি এক মাত্রায় থাকতে পারে। তারপরও আমরা সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নেব। যেন ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমানো যায়। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার বলছে, যে গতিতে ঝড়টি ধেয়ে আসছে শেষ পর্যন্ত তা অব্যাহত থাকলে গত ৩০ বছরের মধ্যে এটিই হবে নিউ ইংল্যান্ডে আঘাত হানা প্রথম হারিকেন। এর আগে, ১৯৯১ সালে নিউ ইংল্যান্ডে সবশেষ আঘাত হানে শক্তিশালী হারিকেন বব।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.