চাচা-ভাতিজা মিলে আমার পিছে লাগছে: পাইলট

করোনাকালে তামিম ইকবালের নিয়মিত লাইভ আড্ডা মানেই যেন ভক্ত সমর্থকদের বাড়তি বিনোদন। মহামারি আকার ধারণ করা ভাইরাসটির প্রভাবে সবকিছু স্থবির হয়ে গেলেও দুর্দান্ত উপস্থাপনায় দেশি-বিদেশি তারকাদের সাথে লাইভে দারুণ সময় কাটাচ্ছেন জাতীয় দলের নয়া ওয়ানডে অধিনায়ক। এসব আড্ডায় উঠে আসছে নানা মজার স্মৃতি, থাকছে আবেগপ্রবণ হওয়ার মত মুহূর্তও।

সবশেষ আড্ডায় যেমন উঠে এলো টাকার লোভ দেখিয়ে তামিমকে দিয়ে খালেদ মাসুদ পাইলটের সেঞ্চুরি করানোর মত এক ঘটনা।গতকাল (১৯ মে) তামিমের অতিথি হিসেবে ছিলেন সাবেক টাইগার তারকা ক্রিকেটার আকরাম খান, মিনহাজুল আবেদিন নান্নু ও খালেদ মাসুদ পাইলট।

২০১৯ সালে নিউজিল্যান্ড সফরে বাংলাদেশ দলের ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন খালেদ মাসুদ পাইলট। মাঠের বাজে পারফরম্যান্সে নুয়ে পড়া বাংলাদেশকে উজ্জীবিত করতে সেঞ্চুরি করলেই লাখ টাকা পুরষ্কার ঘোষণা দিয়ে বসেন ম্যানেজার পাইলট।

অনাকাঙ্ক্ষিত কারণে সিরিজ শেষ না করে দেশে ফেরে বাংলাদেশ দেল। তবে তার আগেই মাঠে গড়িয়েছে দুই টেস্ট, প্রথমটিতে প্রথম ইনিংসেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে বসেন তামিম, পরে সেঞ্চুরি করেছেন সৌম্য সরকার ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও।

সেঞ্চুরি করেও পাইলটের ঘোষিত পুরষ্কার এখনো বুঝে পাননি বলে লাইভ আড্ডায় মজার ছলে বোর্ড পরিচালক চাচা আকরাম খান ও প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর কাছে করেন অভিযোগও।

তামিম বলেন, ‘পাইলট ভাই আমাদের ম্যানেজার হিসেবে নিউজিল্যান্ড ট্যুরে গিয়েছিল যে নিউজিল্যান্ড ট্যুরে বড় একটা দূর্ঘটনা থেকে আমরা বেঁচেছি। আমরা ওয়ানডে সিরিজ খুব খারাপ খেলি, আপনারা দুইজন বোর্ডে আছেন আপনারাও শোনেন, একটু বিচার কইরেন।

ওয়ানডে সিরিজ খারাপ খেলার পর টেস্টে সিরিজ শুরুর আগে পাইলট ভাই ম্যানেজার হিসেবে ঘোষণা দিল টেস্টে যে সেঞ্চুরি করবে তাকে এক লাখ টাকা পুরষ্কার দেওয়া হবে। তো আমি প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরি করেছি, ঐ এক লাখ টাকা আমি এখনো পাইনি। পাইলট ভাই আমার টাকা কই? (হাসি)।

অভিযুক্ত পাইলট দিয়েছেন ব্যাখ্যাও, ‘বেসিক্যালি কখনো কখনো ভালো খেলানোর জন্য অনেক কিছু বলতে হয়। আসলে হয়েছে কি নিউজিল্যান্ড ট্যুরটা আমাদের বেশ বাজে হচ্ছিল।

আমি চাচ্ছিলাম কোনভাবে নিজেদের সেরাটা যেন বের করে আনতে পারি। আর এ জন্যই আমি বলেছিলাম সেঞ্চুরি করলে…। আর আমি জানতাম তামিমই সেঞ্চুরি করবে আর আমাকে জ্বালাবে (হাসি)।

মজার এই ঘটনাটি তামিম আগেও চাচা আকরাম খানের সাথে শেয়ার করেছেন বলে জানান আকরাম খান নিজেই, ‘তামিম আমাকে বলেছে চাচা পাইলট ভাই বলেছিল সেঞ্চুরি করলে এক লাখ টাকা দিবে। তো আমি জিজ্ঞেস করলাম দিচ্ছেনা কেন? সে বলল আমি ডানে গেলে উনি বামে যায় আমি বামে গেলে উনি ডানে। উনি আমার সাথে কথাই বলছেনা। (হাসি)।’

মজার এই আড্ডায় চাচা আকরাম খান ও ভাতিজা তামিমের কাছে থেকে খোঁচা সহ্য করা খালেদ মাসুদ পাইলট পাল্টা জবাবে বলেন, ‘চাচা-ভাতিজা মিলে আমার পিছে লাগছে। আমি টেনশনে ছিলাম, জানতাম তামিম আমাকে ধরবে (হাসি)।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *