জমে উঠেছে বাবা-ছেলের ভোটযুদ্ধ

গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার বোনারপাড়া ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচনে একই ওয়ার্ডে ভোটযু’দ্ধে নেমেছেন বাবা ও ছেলে। দু’জনেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সদস্য পদে। প্রতীক পেয়ে বেশ জমে উঠেছে তাদের ভোটের লড়াই। ছেলে বলেন, ‘আমার জনপ্রিয়তা আছে বলেই প্রার্থী হয়েছি।’ বাবা বলেন, ‘ছেলে প্রার্থী হওয়ায় আপত্তি নেই। জনগণই রায় দিবে।’

প্রতীক বরাদ্দের পরেই বাবা হাছেন আলী ও ছেলে জয়নুল আবেদীন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট প্রার্থনা করছেন। পিতা মোরগ প্রতীক ও পুত্র ফুটবল প্রতীক পেয়ে কোমড় বেঁধেই প্রচারণায় নেমেছেন। বাবা ও ছেলের ভোটযু’দ্ধ নিয়ে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড তথা ইউনিয়ন জুড়ে চায়ের স্টলে, পথেঘাটে কিংবা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে আলোচনার ঝড়।

জানা গেছে, বাবা হাছেন আলী বিগত সময়ে একই ওয়ার্ডে নির্বাচনে জয়ী হয়ে পর পর তিনবার ইউপি সদস্য ছিলেন। অন্যদিকে ছেলে জয়নাল আবেদীন এবারই প্রথম নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। এ প্রসঙ্গে রিটার্নিং অফিসার ও পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা নাহিদুর রহমান জানান, পিতা-পুত্রের চাহিদা মোতাবেক তাদের প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

প্রতীক পেয়েই পিতা-পুত্রের মধ্যে তিক্ততা বৃদ্ধি পায়। একই পরিবারের বাবা-ছেলে নির্বাচন করায় বোনারপাড়া ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ ভোটাররা অনেকেই সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছেন। নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা প্রসঙ্গে ছেলে জয়নুল আবেদীন রাস্তা-ঘাট উন্নয়ন, বাল্যবিবাহ বন্ধ, মাদকমুক্ত ওয়ার্ড গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেন, আমার জনপ্রিয়তা অছে বলেই প্রার্থী হয়েছি।

এদিকে হাছেন আলীর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমার বিপক্ষে ভোট করায় তার প্রতি আমার কোন আপত্তি নাই। তবে আগামী ৫ জানুয়ারি জনগণই রায় দিবে। ওই ওয়ার্ডে বাবা ও ছেলে বাদে সদস্য পদে আরো ৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এলাকার ভোটার নিজু মিয়া বলেন, একই পরিবারে বাবা-ছেলে ভোটে অংশ নেয়ায় অনেকেই দ্বিধায় পড়েছেন।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.