জয়ী না হলে করবেন আত্মহত্যা, কিনেছেন কাফনের কাপড়!

আসন্ন নির্বাচনে জয়ী হতে না পারলে আত্মহত্যা করবেন- জানিয়ে এলাকাবাসীকে চিঠি দিয়েছেন রিপন আলী খান (৩০) নামে এক ইউপি সদস্য প্রার্থী। তিনি রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার মৌরাট ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডে বৈদ্যুতিক পাখা মার্কা নিয়ে ভোটে দাঁড়িয়েছেন। জানা যায়, রিপন আলী খান পূর্ব বাগদুলি গ্রামের রতন আলী খানের ছেলে।

তিনি বিবাহিত এবং ১১ মাস বয়সের একটি কন্যা সন্তান আছে। ভোটারদের রিপন আলী খানের এই হুমকি দানের বিষয়টি বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। এই ঘটনার সত্যতা জানতে গেলে স্থানীয় মো, আক্কাস মণ্ডল বলেন, গত দুইদিন আগে আনুমানিক রাত ১০টার দিকে তার ছোট ভাই শিবলু খান এসে আমাকে চিঠি দিয়ে যায়।

প্রার্থী রিপন আলি খান চিঠিতে ৩০ জনের নাম উল্লেখ করে লিখেছেন- যদি নির্বাচনে জয়ী হতে না পারি তাহলে আমি আত্মহত্যা করব। আর আমার এই মৃত্যুর জন্য দায়ী থাকবেন আমি যাদের নাম উল্লেখ করেছি। সেই চিঠিতে বলা হয়, আমি মোঃ রিপন আলী খান ৫ নম্বর ওয়ার্ডে বৈদ্যুতিক পাখা নিয়ে নির্বাচন করতে চাচ্ছি আপনারা যদি আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত না করেন তাহলে আমি আত্মহত্যা করবো।

আগামী ৬ জানুয়ারি তারিখে আমি আত্মহত্যা করবো। আমার মৃত্যুর পরে আমার বউ বাচ্চার দায়িত্ব আপনাদের নিতে হবে। আমি একটি মহিষ কিনে রেখে যাব সেই মহিষ আমার কুলখানির কাজে ব্যবহৃত হবে। আর আমি যদি জয়ী হই তাহলে সেই মহিষ জবাই করে এলাকাবাসীকে খাওয়াবা। এদিকে এলাকাবাসী জানায়, তিনি কাফনের কাপড়ও কিনেন।

পরে এলাকাবাসীর তােপের মুখে পড়ে সেই কাফনের কাপড় পুড়িয়ে ফেলেন। মেম্বার প্রার্থী মাে. রিপন আলী খানের ভাই মাে. শিবলু খান বলেন, আমি কাউকে চিঠি দেইনি আমার ভাইয়ের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা এগুলাে করে আমার ওপর দায় চাপিয়েছে, আমি এর কিছুই জানি না। এ বিষয়ে মেম্বার প্রার্থী মাে. রিপন আলী খান বলেন-

আমি এগুলাে কিছুই জানি না, আমি এ কাজ করিনি কে বা কারা করেছে আমি জানি না। এদিকে মৌরাট ইউনিয়নে দায়িত্বরত রিটার্নিং কর্মকর্তা মাহবুব হােসেন বলেন, আমাদের কাছে কোনাে অভিযােগ আসেনি তবে উনি যেটা করেছেন সেটা আইনে নেই, যদি কেউ লিখিত অভিযােগ করে তাহলে অবশ্যই প্রার্থীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.