জিতেছে কিউইরা, সমীকরণ আরও জটিল হলো ভারতের

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের ম্যাচে নামিবিয়াকে হেসে খেলে হারিয়ে দিয়েছে নিউজিল্যান্ড। কিউউদের ১৬৪ রানের জবাবে ২০ ওভার শেষে ১১১ রানেই থামে নামিবিয়ার ইনিংস। এতে ৫২ রানের জয় পায় নিউজিল্যান্ড। এতে ভারতের সেমিফাইনালে যাওয়া অনেকটাই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। গ্রুপ-২ এ চার ম্যাচে ছয় পয়েন্ট কিউইদের।

ফলে নিউজিল্যান্ড যদি আফগানিস্তানের বিপক্ষের ম্যাচটি জিতে যায়, তাহলে আট পয়েন্টে পৌঁছে যাবে। এতে ভারতের সামনে সেমিফাইনালে যাওয়ার কোনো সুযোগ থাকবে না। শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় নামিবিয়া। শুরু থেকেই নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের মাধ্যমে মার্টিন গাপটিল-কেন উইলিয়ামসনদেরকে ম্যাচের লাগাম নিতে দেয়নি নামিবিয়া।

১৫ ওভার পর্যন্ত রান রেট ৬ রেখে শেষবেলার পাওয়ার হিটিংয়ে চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ গড়েছে নিউজিল্যান্ড। শেষ ৫ ওভারে গ্লেন ফিলিপস ও জিমি নিশাম ঝড়ো গতিতে তুলেছেন ৭২ রান। এর আগে, ১৪ তম ওভারের শেষ বলে ডেভন কনওয়ে রান আউট হলে ৮৭ রানেই পতন ঘটেছিল নিউজিল্যান্ডের ৪র্থ উইকেটের। তারপর ফিলিপস ও নিশামের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে আসে ৩৬ বলে ৭৬ রান!

এর আগ পর্যন্ত অবশ্য মার্টিন গাপটিল-কেন উইলিয়ামসনদেরকে নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ম্যাচের লাগাম নিতে দেয়নি নামিবিয়া । কিউই ব্যাটারদের মধ্যে শুরু করছেন সবাই-ই। তবে টপ অর্ডারের কেউই ইনিংসকে বড় করতে পারেননি। গাপটিল ১৮, ড্যারিল মিচেল ১৯, কেন উইলিয়ামসন ২৮ এবং ডেভন কনওয়ে আউট হয়েছেন ১৭ রান করে।

কিউইদের রানের গতি প্রথম ভাগে নিয়ন্ত্রণে রাখার কাজ কমবেশি নামিবিয়ার সবাই করেছেন। তবে এর মধ্যেই আসবে আজই একাদশে সুযোগ পাওয়া বার্নার্ড শোলজ। ৩ ওভারে ১৫ রান দিয়ে ড্যারিল মিচেলের উইকেট নেন তিনি। এছাড়া শেষদিকে খরুচে বল করলেও নামিবিয়ার তারকা খেলোয়াড় ডেভিড ভিসা আজও আছেন দলের পারফর্মারদের তালিকায়।

মার্টিন গাপটিলের গুরুত্বপূর্ণ উইকেটটি তুলে নিয়ে নামিবিয়াকে অন্তত একটা ঝড় থেকে বাঁচিয়েছিলেন ভিসা। এছাড়া নামিবিয়া অধিনায়ক জেরার্ড ইরাসমাস ৪ ওভারে মাত্র ২২ রান দিয়ে নিয়েছেন কেন উইলিয়ামসনের উইকেট। জবাবে ব্যাট করতে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে নামিবিয়ার ব্যাটাররা। দুই ওপেনার বার্ড ও লিনজেন ভালোই শুরু করেছিল।

তবে ৪৭ রানের মাথায় নেশামের বলে লিনজেন বোল্ড হয়ে গেলে শুরু হয় ব্যাটারদের আসা যাওয়ার মিছিল। পরের ৮ রান তুলতেই সাজঘরে ফিরে যান বার্ড ও ইরাসমাস। পরবর্তীতে টিম সাউথি জোড়া আঘাতে ফিরে যায় লড়াই চালিয়ে যাওয়া উইসি ও গ্রীন।

শেষ দিকে ট্রেন্ট বোল্টের দুই উইকেটের তুলে নিয়ে ১১১ রানেই থামিয়ে দেয় নামিবিয়ার ইনিংস। এ জয়ে গ্রুপ-২ এ চার ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে কিউইরা। অন্যদিকে, চার ম্যাচে ২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের পাঁচ নাম্বার অবস্থানে আছে নামিবিয়া।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.