টাইগারদের লঙ্কা সফর নিয়ে শঙ্কা!

শ্রীলঙ্কা সফর সামনে রেখে এখনো লঙ্কান বোর্ডের পাঠানো জৈব সুরক্ষা পরিকল্পনা ও কোয়ারেন্টাইন বিধিনিষেধ এমনকি আনুষ্ঠানিক সূচি, ভেন্যুর খবরও পায়নি বিসিবি। লঙ্কান দ্বীপে পৌঁছে কতদিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে সেটাও অনিশ্চিত টাইগার ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থার।

কিন্তু শ্রীলঙ্কার সুরক্ষা সংস্থাগুলো পরামর্শ দিয়েছে তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিমদের যেন ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনেই রাখা হয়। যদিও বিসিবি আনুষ্ঠানিক কোন নির্দেশনা না পাওয়ায় সিদ্ধান্ত নিতে চায় পরিস্থিতি বুঝে।

শ্রীলঙ্কান সরকারের কড়া নির্দেশ বহিরাগতদের প্রবেশে মানতে হবে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন। বিসিবি অবশ্য চেয়েছে টাইগারদের কোয়ারেন্টাইন মেয়াদ শিথিল করতে। আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব দিলেও শ্রীলঙ্কান বোর্ড এখনো জানায়নি কোন কিছুই। তবে অনানুষ্ঠানিকভাবে জানতে পেরেছে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন নিয়মেই বহাল থাকবে দেশটির সরকারি নির্দেশনা।

এদিকে সিরিজ শুরুর এক মাস আগে যাওয়া বাংলাদেশ দল প্রথম দিকে লঙ্কান ক্রিকেটারদের থেকে দূরে থেকে নিজেদের মত অনুশীলন করবে, ছিল জোর সম্ভাবনা। ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন নিয়ম কড়াকড়িভাবে মানতে হলে এই সুবিধাও পাবেনা মুশফিকুর রহিম, লিটন দাসরা। ১৪ দিনই থাকতে হবে গৃহবন্দী।

লঙ্কান বোর্ড থেকে এখনো আনুষ্ঠানিক গাইডলাইন না পাওয়ায় পুরো বিষয়টি নিয়ে এখনই সিদ্ধান্ত নিতে নারাজ বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান। ক্রিকেট ওয়েবসাইট ‘ক্রিকবাজকে’ আকরাম খান বলেন, ‘হ্যাঁ, আমরা শুনেছি সুরক্ষা সংস্থাগুলো পরামর্শ দিয়েছে যে অনুশীলনের কোন ব্যবস্থা ছাড়াই আমাদের সেখানে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকার। বিভিন্ন সূত্রের মাধ্যমে আমরা আরও অনেক কিছুই শুনছি।’

‘কিন্তু তারা আনুষ্ঠানিকভাবে জৈব সুরক্ষা প্ল্যান ও ভ্রমণ নির্দেশনার বিষয়টি পরিষ্কার করছেনা। আমরা আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফর সম্পর্কিত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব কেবলমাত্র তাদের পরিকল্পনা ও সূচি যখন পাব। আশা করছি কয়েকদিনের মধ্যে সেটা পাচ্ছি।’

প্রসঙ্গত, তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজ খেলতে ২৭ সেপ্টেম্বর দেশ ছাড়ার কথা বাংলাদেশ দলের। আগামী ২৪ অক্টোবর প্রথম টেস্টে মাঠে গড়ানোর সম্ভাব্য সূচি। মূলত নিজেদের পর্যাপ্ত প্রস্তুতির লক্ষ্যেই সিরিজ শুরুর এক মাস আগে শ্রীলঙ্কায় যাবে টাইগাররা।

যেখানে তাদের সঙ্গ দিবে হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) ইউনিটের বড়সড় স্কোয়াড। একসাথে অনুশীলনের পাশাপাশি থাকবে নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে প্রস্তুতি ম্যাচও। তবে সফরে ১৪ দিনই ঘরে বসে কাটাতে হলে ভিন্ন পথে হাঁটে কীনা বিসিবি সেটাই দেখার বিষয়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*