টাইগারদের সংবাদ সম্মেলন বয়কট করলো সাংবাদিকরা

বাংলাদেশ দলের সংবাদ সম্মেলন বয়কট করেছেন ওমানে থাকা সব সাংবাদিক। স্থানীয় সময় বুধবার (২০ অক্টোবর) বিকেল সাড়ে ৫টায় সংবাদ সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল, তবে রাতে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কেউ সংবাদ সম্মেলনে আসেনি। এর আগে ওমানের বিপক্ষে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে কষ্টার্জিত জয়ের পর ওমান যথা সময়ে আসলেও, বাংলাদেশ দল ঠিক সময়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেনি।

প্রায় আধাঘণ্টা পর আসেন ম্যাচসেরা সাকিব আল হাসান। এ সময় কিছু প্রশ্নে তিনি মেজাজ হারান। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) বাঁচা-মরার লড়াইয়ে বিশ্বকাপের মূলপর্বে খেলার স্বপ্নটা বাঁচিয়ে রেখেছে টাইগাররা। ১৫৪ রানের টার্গেট দেওয়া বাংলাদেশের বোলিং-ফিল্ডিং দেখে একটা সময় মনে হচ্ছিল এই বুঝি ফিকে হতে চলেছে টাইগারদের স্বপ্ন।

বোলিংয়ে একের পর এক ওয়াইড, ক্যাচ মিস, রান আউটের সুযোগ কাজে লাগাতে না পারায় হতাশার ছাপ স্পষ্ট হয়ে ওঠে সবার চোখে-মুখে। কিন্তু ম্যাচের বয়স বাড়ার সাথে সাথে চিত্রপট পাল্টাতে শুরু করে। ১৫৪ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১২৭ রানে থামে ওমান। ফলে ২৬ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে টাইগাররা।

১৫৪ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরু থেকেই বলের সঙ্গে গতি রেখেই রান তুলছিল ওমানের ব্যাটসম্যানরা। কাশাব প্রজাপতি ভালোই শুরু করেছিলেন। তবে তাকে ফিরিয়ে উল্লাস করেন মুস্তাফিজ। ফিরে যাওয়ার আগে কাশাব প্রজাপতি করেন ১৮ বলে ২১ রান। তারপর ওমানের খেলোয়াড়রা বেশ কিছু জীবন পায়। জীবন পেয়ে যতীন্দর সিং এবং অধিনায়ক জিসান মাকসুদ মিলে এগিয়ে নিচ্ছিলেন দলের রান।

তবে তাতে বাধা হয়ে এলেন স্পিনার মেহেদী হাসান। দু‌’জনের ৩৪ রানের জুটি ভাঙেন মেহেদী। এরপর ভালোই খেলতে থাকা যতীন্দরকে ফেরান সাকিব। তিনি ফিরে গেছেন ৩৩ বলে ৪০ রান করে। এই জুটির পর আর তেমন কেউই উইকেটে থিতু হতে পারেননি।

বোলিংয়ে এসে আঘাত হানেন সাইফউদ্দিন। এরপর পরপর দুই বলে দুই উইকেট নিয়ে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগিয়ে তোলেন সাকিব। শেষ দিকে মোহাম্মদ নাদিম অপরাজিত থাকেন ১২ বলে ১৪ রান করে। এছাড়া আর তেমন কেউই দুই অঙ্কের ঘর পেরোতে পারেননি। ফলে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১২৭ রানে থেমে যায় ওমানের ইনিংস। বাংলাদেশের হয়ে মুস্তাফিজ নিয়েছেন ৪টি উইকেট।

এছাড়া সাকিব নিয়েছেন ৩টি উইকেট। এর আগে নানা সমীকরণের ম্যাচে স্বাগতিক ওমানের বিপক্ষে ১৫৩ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। টস জিতে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১৫৩ রান সংগ্রহ করে টাইগাররা। ফিফটি তুলে নেন ওপেনার নাঈম শেখ। তার ব্যাট থেকে আসে ৫১ বলে ৬৪ রান। ওমানের হয়ে বিলাল খান ৩টি, ফায়াজ বাট নেন ৩টি করে উইকেট। এছাড়া কলিমউল্লাহ নিয়েছেন ২টি উইকেট।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.