টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যেমন হবে বাংলাদেশ দল

১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিশ্বকাপ দল ঘোষণা করার সময় বেঁধে দিয়েছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। সেই সময়ের অনেক আগেই বিশ্বকাপ দল ঘোষণা করছে বিভিন্ন দেশ। ইতোমধ্যেই অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড সেই তালিকায় নাম লিখিয়েছে।

তবে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দল ঘোষণা হতে পারে সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে। বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন এমনটাই। দল ঘোষণার আগে একনজরে দেখে নেয়া যাক কেমন হতে পারে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড।

আইসিসি জানিয়েছে, বিশ্বকাপে একটি দলের সদস্য সংখ্যা হবে ১৫ ক্রিকেটার ও ৮ কোচিং স্টাফ নিয়ে। এর বাইরে কোন ক্রিকেটারকে যদি নিতে চায় তবে খরচ বহন করতে হবে নিজেদের। অবশ্য কোভিডের কারণে সব দলই নিজেদের বাড়তি ক্রিকেটার নিয়ে নিবে।

যেমনটা অস্ট্রেলিয়া,নিউজিল্যান্ডও করেছে। বাংলাদেশও হয়ত এর ব্যতিক্রম করবেনা। ধারণা করা হচ্ছে, নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্য বিসিবি যে ১৯ সদস্যের দল দিয়েছে সেখান থেকেই ১৫ জন থাকবেন বিশ্বকাপের মূল দলে৷ আর অতিরিক্ত ৪ জন বেকআপ হিসেবে যেতে পারেন বিসিবির খরচায়।

তবে কোন ১৫ জন মূল দলে থাকবেন সেটা নির্বাচকরা ঠিক করবেন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ২-৩ ম্যাচের পরই। বিসিবির নির্বাচকও বলছেন এমনটাই।
মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বিশ্বকাপের দল নিয়ে বলেন, “নিউ জিল্যান্ড সিরিজের দুই-তিনটি ম্যাচ হয়তো আমরা দেখতে পারি (দল ঘোষনার আগে)।

তবে এই সিরিজে যে ১৯ জন খেলবে, এর বাইরে বিবেচনার আসার মতো সেরকম কেউ নেই। ওদেরকে নতুন করে দেখার আছে কমই। বরং এখান থেকে কমাতে হবে।” এই ১৯ জনের বাইরে বিবেচনায় আসার মতো একমাত্র সম্ভাব্য নাম তামিম ইকবাল।

চোটের কারণে সবশেষ জিম্বাবুয়ে ও অস্ট্রেলিয়া সিরিজে খেলেননি অভিজ্ঞ এই ওপেনার। থাকছেন না তিনি কিউইদের বিপক্ষেও। বিশ্বকাপের আগে তিনি ফিট হবেন কিনা, ফিট হলেও ম্যাচ অনুশীলন ছাড়া তাকে বিশ্বকাপ দলে রাখা উচিত হবে কিনা, প্রশ্ন আছে এরকম বেশ কিছু।

তবে প্রধান নির্বাচক জানিয়েছেন তামিমের চোটের অবস্থা জানার পর তারা করণীয় ঠিক করবেন। “তামিমের ইনজুরির অবস্থা জানতে হবে। ফিজিওর সঙ্গে কথা বলতে হবে। ফিজিও রিপোর্ট কেমন দেয়, কবে খেলতে পারবে। তামিমের সঙ্গেও কথা বলব আমরা।”

উল্লেখ্য ১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দল ঘোষণা করার নিয়ম থাকলেও দলগুলির কোয়ারেন্টিন শুরুর পাঁচদিন আগে পর্যন্ত সেখানে পরিবর্তন আনা যাবে। চোট-আঘাতের ক্ষেত্রে অনুমতি সাপেক্ষে পরিবর্তনের সুযোগ আছে সবসময়ই।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সম্ভাব্য দল: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল(নাইম শেখ), লিটন দাস, সৌম্য সরকার, আফিফ হোসেন,

নুরুল হাসান সোহান, নাসুম আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান, মোহাম্মদ সাইফুদ্দীন, শামিম হোসেন, শেখ মেহেদী হাসান, তাসকিন আহমেদ।স্ট্যান্ডবাই: মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, নাইম শেখ, রুবেল হোসেন, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.