ট্রাম্পের পথেই হাটলেন বাইডেন

চীনের সামরিক বাহিনীর সঙ্গে সংযোগ থাকার অভিযোগে দেশটির প্রযুক্তি ও প্রতিরক্ষা সংশ্লিষ্ট বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানে মার্কিনিদের বিনিয়োগ নিষিদ্ধ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। আগামী ২ আগস্ট থেকে কার্যকর হতে যাওয়া নতুন এই নির্বাহী আদেশে চীনের যোগাযোগ জায়ান্ট হুয়াওয়েসহ ৫৯টি কোম্পানি আক্রান্ত হবে।

এ পদক্ষেপের মাধ্যমে মূলত সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জারি করা একটি নিষেধাজ্ঞা সম্প্রসারণ করলেন বাইডেন। এদিকে আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগেই এর বিরুদ্ধে পাল্টা পদক্ষেপ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে চীন। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমলে চীনের ৩১টি কোম্পানির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

হোয়াইট হাউজের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন হলো চীনের সামরিক বাহিনীকে সহায়তা করতে মার্কিন নাগরিকেরা যেন বিনিয়োগ না করেন তা ঠেকানোই এই নিষেধাজ্ঞার উদ্দেশ্য।বাইডেনের নতুন আদেশের ফলে মার্কিন বিনিয়োগকারীরা তালিকাভুক্ত চীনা কোম্পানির শেয়ার ক্রয়-বিক্রয় করতে পারবেন না।

এসব কোম্পানির মধ্যে রয়েছে চীনের জেনারেল নিউক্লিয়ার পাওয়ার কর্পোরেশন, চায়না মোবাইল লিমিটেড এবং কোস্টার গ্রুপ। মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতরের পক্ষ থেকে নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা কোম্পানির তালিকা নবায়ন করা হয়েছে। হোয়াইট হাউজের তরফে বলা হয়েছে, ‘আমরা পূর্ণাঙ্গভাবে বিশ্বাস করি সামনের মাসগুলোতে নতুনি নির্বাহী আদেশের নিষেধাজ্ঞায় আরও নতুন কোম্পানি যোগ করা যাবে।’

উল্লেখ্য, সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমলে চীন-মার্কিন সম্পর্কের অবনতি হয়। বেইজিং বরাবর নতুন মার্কিন প্রশাসনকে সম্পর্ক উন্নয়নের তাগিদ দিয়েছে। গত মাসে বাইডেনের আমলে দুই দেশের বাণিজ্য আলোচকদের মধ্যে প্রথম বৈঠকে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেছেন চীনা পণ্যের ওপর আরোপ করা উচ্চ শুল্ক বজায় থাকবে কেননা মহামারির পর মার্কিন অর্থনীতি পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.