ডিপজলকে হতাশ করলেন রেসি!

ঢালিউড অভিনেত্রী মৃদুলা আহমেদ রেসি অভিনয়ে এখন অনেকটাই অনিয়মিত। সবশেষ ২০১৬ সালে জাকির হোসেন রাজুর ‘নিয়তি’ ছবিতে দেখা গিয়েছিল তাকে।এর বছর তিনেক পর ২০১৯ সালের শে’ষ দিকে লেডি অ্যা’কশন ঘরানার ‘ইয়েস ম্যাডাম’ চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করেন রেসি। ছবিটির পরিচালক রকিবুল আলম রাকিব।

শুটিং শেষে ইতোমধ্যেই ছবিটির ডাবিংয়ে অংশ নিয়েছেন নায়িকা।নির্মাতা সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরই ‘ইয়েস ম্যাডাম’ চলচ্চিত্রটি মু’ক্তি দেয়া হবে। তবে রেসি এরইমধ্যে আরও চারটি ছবিতে প্রস্তাব পেয়েছেন। যদিও তিনি এখনও সায় দেননি। এজন্য সিদ্ধান্ত নিতে কিছু দিন সময় নিচ্ছেন। বুঝেশোনেই পা বাড়াতে চান তিনি।

এ প্রসঙ্গে রেসি বলেন, ‘মাঝে কিছু দিন অ’সুস্থ ছিলাম। থাইরয়েড স’মস্যা হয়েছিল। ওজন বেড়ে গেছে। আমি শারীরিকভাবে ফিট হতে চাচ্ছি। তাই সময় নিচ্ছি। ডিপজল ভাইও প্রস্তাব দিয়েছিল। সেই প্রস্তাবও হাসিমুখে ফিরিয়ে দিয়েছেন।’

ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় খল অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল গত দুই দশকেরও বেশি সময় ধ’রে দাপটের সঙ্গে অভিনয় করছেন। অন্যদিকে ২০০৪ সালে বুলবুল জিলানীর ‘নীল আঁচল’ নামের একটি ছবিতে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে বড় পর্দায় অভিষেক ঘটে রেসির।

একটা সময় একস’ঙ্গে একাধিক ছবিতে দেখা যায় ডিপজল ও রেসিকে। এমনকি খলনায়ক থেকে রেসির নায়ক হয়ে উঠেন ডিপজল। এরপর গু’ঞ্জন ছড়ায়, বাস্তবের কি ডিপজলের স’ঙ্গে প্রে;ম করছেন রেসি! তবে সেইসব গু’ঞ্জন কখনোই হালে পানি পায়নি।

যদিও সবশে’ষ ‘ইয়েস ম্যাডাম’ ছবির শুটিং করতে ডিপজলের শুটিং বাড়ি হিসেবে পরিচিত সাভারের ‘দিপু ভিলা’য় গিয়েছিলেন রেসি। এখন পর্যন্ত ‘এক জবান’, ‘বাজারের কুলি’সহ প্রায় ১৩টি ছবিতে জুটি বেঁ’ধেছেন ডিপজল ও রেসি।

তবে ডজনেরও বেশি ছবিতে একস’ঙ্গে অভিনয় করলেও বাস্তবে মনের জুটি বাঁ’ধেননি তারা- রেসির কথায় তেমনই আভাস আছে। ডিপজল প্রসঙ্গে একসময় রেসি বলেছিলেন, ‘অনেকগুলো ছবিতে একস’ঙ্গে কাজ করেছি। কাজের ফাঁকে ও (ডিপজল) আমার বন্ধু হয়ে যায়। ওর সঙ্গে ভালো বন্ধুত্ব। এটা অটুট আছে।’

নায়িকার কথায়- ‘ডিপজলের সঙ্গে আমার স’ম্পর্ক পরিবারের সবাই জানে। তবে সেটা অন্যরকম ভালোবাসা, অন্যরকম প্রেম। আর বাইরের মানুষ কে কি বললো এটা নিয়ে আমি চিন্তিত নই। ডিপজল ও আমি খুবই কাছাকাছির মানুষ। স’ম্পর্কটাও কাছাকাছির।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.