ডিভোর্স দেব না, নুন দিয়ে হলেও খাব

তৃতীয়বারের মতো বিয়ে করে সংসার পেতেছিলেন কণ্ঠশিল্পী ইলিয়াস। বিয়ে করেছিলেন চলচ্চিত্রে নাম লেখানো অভিনয়শিল্পী শাহ হুমায়রা সুবাহকে। কিন্তু মাস না যেতেই ভাঙনের মুখে সেই সংসার। এর কারণ হিসেবে তৃতীয় ব্যক্তির উপস্থিতিকে দায়ী করছেন সুবাহ। অন্যদিকে ইলিয়াস দায়ী করছেন সুবাহকে। ইলিয়াসের বক্তব্য সুবাহ অযাচিতভাবে অশান্তি তৈরি করছে।

আবার থানায় দুজনই সাধারণ ডায়েরি করেছেন যেখানে দুজনই গুরুতর অভিযোগ উল্লেখ করেছেন। সুবাহ ও ইলিয়াস দুজনই অভিযোগে লিখেছেন, তারা পরস্পরের নিকট শারীরিক নির্যাতন। মান সম্মানহানি, নিজেকে আঘাত করে নারী নির্যাতন মামলার ভয় ও জীবনের নিরাপত্ত্বাহীনতার বিষয়টি উল্লেখ করেছেন ইলিয়াস।

রমনা মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন গায়ক। ইলিয়াসের করা জিডি নাম্বার ১৬২২।আবার স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ এনে বনানী থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন সুবাহ। জিডি নাম্বার ২৫১৬।সাধারণ ডায়েরি করলেও সুবাহ বিচ্ছেদের পথে হাঁটতে চান না। তিনি বলেন, নিরাপত্তাজনিত কারণে আমি আমি সাধারণ ডায়েরি করেছি।

ইলিয়াসের সঙ্গেই সংসার করতে চান জানিয়ে সুবাহ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমি তো ছাড়ার জন্য বিয়ে করিনি। আমি বিয়ে করেছি সংসার করার জন্য। আমি একটাই বিয়ে করেছি। বিয়ে করা আমার পেশা না। আমি ওকে ছাড়ব না। আমি ইলিয়াসের ভাতই খাবো। নুন মরিচ দিয়ে ভাত খাওয়ালেও ইলিয়াসের ঘর করবো। আমার দিক থেকে ডিভোর্স দিব না।’

এদিকে, বৃহস্পতিবার দুপুরে ইলিয়াস কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমি বিচ্ছেদের দিকেই যাচ্ছি। এতে কোনো সন্দেহ নেই। আসলে ফেরার পথ থাকে, কিন্তু সেই পথ সে রাখেনি। লাইভে এসে কি বলছে আপনারা জানেন, এক থার্ড পারসনের লাইভে গিয়ে উলটাপালটা কথা কথা বলে। আসলে যে পরিস্থিতি হয়ে গেছে আপনি আমার জায়গায় থাকলে কী করতেন?’

করিনের সঙ্গেই সংসার করবেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে ইলিয়াস বলেন, ‘এখন এসব প্রশ্নের উত্তর দিতে পারছি না। কিছু গণমাধ্যম ভুলভাল লিখেছে। আমি তার সঙ্গে সংসার করবো এমন কথা কোথাও বলিনি। সময় বলে দেবে আমি কী করবো। আমার মা হাসপাতালে আমি মায়ের কাছে এসেছি। পরে কথা বলবো।’

মডেল ও অভিনেত্রী সুবাহ শাহ হুমায়রার সঙ্গে ইলিয়াসের প্রেমের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল কিছুদিন ধরেই। কিন্তু সেটা নিশ্চিত না করে ইলিয়াস বলেছিলেন, ‘আমরা ভালো বন্ধু।’ কিন্তু এই বন্ধুত্বের নমুনা গণমাধ্যমকর্মীদের চোখ এড়ায়নি।

অবশেষে হুমায়রা সুবাহ গত বৃহস্পতিবার নিজেদের গায়েহলুদের ছবি প্রকাশ করেন। এ বিষয়ে কালের কণ্ঠের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে সুবাহ গায়েহলুদের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ, আমাদের গায়েহলুদ হয়েছে।’ কবে হয়েছে জানাননি। বিয়ে কবে হয়েছে—এ প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে যান তিনি। তবে পরবর্তীতে নিশ্চিত করেন ১ ডিসেম্বর তারা বিয়ে করেছেন।

‘না বলা কথা’, ‘আমার ভিতর’, ‘এক পলকে’, ‘নীল নয়না’, ‘সারাটি জীবন’, ‘শোন একটা কথা বলি’ গানগুলোর মাধ্যমে শ্রোতামহলে জনপ্রিয়তা পান ইলিয়াস।

সুবাহ ২০১৯ সালে রফিক সিকদারের ‘বসন্ত বিকেল’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে সিনেমার কাজ শুরু করেন। এরপর একে একে ছয়টি চলচ্চিত্রে কাজ করেন সুবাহ। যদিও এখন পর্যন্ত তার কোনো ছবিই মুক্তি পায়নি।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.