ডোমিঙ্গোর জালে আটকা পড়েছে পাপন

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের এমন বাজে পারফরম্যান্সে সমালোচনায় মুখর সমর্থকরা। শুধু তারাই নয় সাবেক ক্রিকেটাররাও নানা কথা বলে যাচ্ছে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভরাডুবির পর বাংলাদেশ দলে রদবদল হচ্ছে।অধিনায়ক বদলের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। টিম ম্যানেজমেন্টেও বদল আসছে। কোচিং স্টাফেও পরিবর্তন আসার সম্ভাবনা রয়েছে।

যেখানে প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোকে নিয়েই সমালোচনা বেশি হচ্ছে।হিসেব মিলালে দেখা যায় ডোমিঙ্গো বিসিবিকে একরকম ফাঁদেই ফেলেছে। তবে এখানে বিপত্তিতে পড়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।ইচ্ছা করলেও হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গোকে এক কথায় বিদায় করে দিতে পারছে না বিসিবি। চুক্তির মারপ্যাঁচে আটকা পড়েছেন তারা।

বিশ্লেষকদের মতে, ডমিঙ্গোর ফাঁদে পা দিয়েছে বিসিবি। শনিবার ক্রীড়া সাংবাদিক নোমান মোহাম্মদের ‘নট আউট নোমান’-এ অতিথি হয়ে আসেন বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।সেখানে জাতীয় দলকে ঢেলে সাজানোর প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে মাশরাফি প্রকাশ করেন কীভাবে ডমিঙ্গোর ফাঁদে পা দিয়েছে বিসিবি।

উল্লেখ্য, বিশ্বকাপে যাওয়ার আগে ডমিঙ্গোর সঙ্গে যে চুক্তি করে বিসিবি তাতে স্পষ্ট লেখা আছে—‘প্রথম এক বছরে বিসিবি রাসেল ডমিঙ্গোকে বরখাস্ত করতে চাইলে কিংবা তিনি চাকরি ছাড়তে চাইলে সেই সময় থেকে এক বছর হওয়া পর্যন্ত যত মাস বাকি থাকবে সেই মাসের বেতনের অঙ্ক বুঝিয়ে দিতে হবে তাকে।’

এমন চুক্তিতে বিসিবিকে রাজি করানোর পেছনে জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ দলের অভাবনীয় সাফল্যকে কাজে লাগিয়েছেন ডমিঙ্গো।দুর্বল দল জিম্বাবুয়েকে সিরিজ হারায় তাদের মাঠেই। দেশে ফিরে ঘরের মাঠে শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ইতিহাস গড়েছেন টাইগাররা।

আর সেই সুযোগেই চাল চেলেছেন ডমিঙ্গো। ওই সময় বিসিবির কাছে ডমিঙ্গো দাবি করেন, অস্ট্রেলিয়ায় তাসমানিয়ার কোচ হওয়ার প্রস্তাব পেয়েছেন তিনি। তাই বিশ্বকাপের আগে হয় তার চুক্তি নবায়ন করতে হবে দুই বছরের জন্য। নয়তো তিনি নতুন চাকরিতে যোগ দেবেন।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগমুহূর্তে এমন কথা শুনে বিসিবিকর্তারা চিন্তায় পড়ে যান। এ মুহূর্তে কোচ ছাড়া বিশ্বকাপে গেলে বিতর্ক ও সমালোচনার মুখে পড়তে হবে বিসিবিকে। তা ছাড়া অস্ট্রেলিয়া আর নিউজিল্যান্ডকে সিরিজ হারানোর আনন্দে বিসিবি খুশি ছিল ডমিঙ্গোর ওপর।

তাই বিশ্বকাপের আগেই ৫০ শতাংশ বেতন বৃদ্ধি করে ডমিঙ্গোর সঙ্গে নতুন করে দুই বছরের চুক্তি করে ফেলে বিসিবি । এখন নতুন চুক্তি অনুযায়ী, ডমিঙ্গোর মাসিক বেতন হবে প্রায় ১৭ হাজার ডলার। অর্থাৎ প্রায় সাড়ে ১৪ লাখ টাকা!

এখন ডমিঙ্গোকে বাদ দেওয়া হলে বিসিবি এক বছরের বেতন ক্ষতিপূরণ হিসেবে দিতে বাধ্য থাকবে। যার পরিমাণ ২ লাখ ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় এক কোটি ৭১ লাখ ৫৪ হাজার টাকা!) ডমিঙ্গো এমনই চুক্তি করেছেন যে, নিজে থেকে ছাড়তে চাইলেও একই পরিমাণ টাকা দিতে হবে তাকে।

তাই ভালো কোনো কোচ এনে ডমিঙ্গোকে বিদায় জানাতে হলে এই দুই কোটির কাছাকাছি অর্থ জরিমানা গুনতে হবে বিসিবিকে। শোনা যাচ্ছে, এত বিপুল অর্থ জরিমানা দিয়েও শ্রীলংকান কোচ হাথুরাসিংহকে আনতে আগ্রহী বিসিবি।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.