তালেবানকে বাধ্য করতে কাজ করছে ৪ দেশ

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ বলেছেন, আফগানিস্তানের তালেবান শাসকরা যাতে তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে তা নিশ্চিত করতে রাশিয়া, চীন, পাকিস্তান ও যুক্তরাষ্ট্র একসঙ্গে কাজ করছে। বিশেষ করে একটি সত্যিকারের প্রতিনিধিত্বমূলক সরকার গঠন ও উগ্রবাদের প্রচার বন্ধে তারা কাজ করছেন বলে তিনি দাবি করেন।

শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) এক সংবাদ সম্মেলনে সের্গেই লাভরভ বলছেন, এই চার দেশের মধ্যে যোগাযোগ চলছে। সম্প্রতি রাশিয়া, চীন ও পাকিস্তানের প্রতিনিধিরা কাতার সফর করেছেন। পরে তারা আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে যান। তালেবান ও সাবেক প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই এবং আবদুল্লাহ আবদুল্লাহসহ ধর্মনিরপেক্ষ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলতে তারা এই সফর করেন।-খবর ডন ও আলজাজিরার

তিনি বলেন, তালেবান যে সরকার গঠন করেছে, তাতে পুরো আফগান সমাজের প্রতিনিধিত্ব নেই। কাজেই আমাদের আলোচনা চালিয়ে যেতে হচ্ছে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো—তারা প্রকাশ্যে যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে—তার সঠিক বাস্তবায়ন করা। আমাদের এটিই সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার।

আফগানিস্তান থেকে তাড়াহুড়ো করে সেনাপ্রত্যাহারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসনেরও সমালোচনা করেছেন এই রুশ কূটনীতিক। তিনি বলেন, পরিণতির কথা না-ভেবেই আফগানিস্তান থেকে সেনাপ্রত্যাহার করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো। সেখানে তারা বহু অ’স্ত্র ফেলে রেখে এসেছে, যা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এসব অস্ত্র যাতে ধ্বংসাত্মক কাজে ব্যবহার করা না হয়, তাও নিশ্চিত করতে হবে। এদিকে তালেবান সরকারকে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি বর্তমানে বিবেচনায় নেই বলে জানিয়েছেন সের্গেই লাভরভ। এর আগে জাতিসংঘে একজন প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে তালেবান।

এরপরেই লাভরভ বলেন, বর্তমানের এই সন্ধিক্ষণে তালেবানকে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির বিষয়টি বিবেচনায় নেই। তালেবানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মোত্তাকি সোমবার দোহাভিত্তিক মুখপাত্র সোহাইল শাহিনকে জাতিসংঘে আফগানিস্তানের মুখপাত্র হিসেবে মনোনীত করেন। গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের ক্ষমতার নিয়ন্ত্রণ নেয় তালেবান গোষ্ঠী।

এদিকে তালেবানের উৎখাত করা আফগান সরকারের জাতিসংঘের প্রতিনিধি গুলাম ইসাকজাই তার অ্যাক্রিডেশন নবায়ন করতে অনুরোধ করেছেন। এদিকে জাতিসংঘকে দেওয়া চিঠিতে তালেবান বলেছে, ক্ষমতাচ্যুত আফগান সরকার নিযুক্ত জাতিসংঘের স্থায়ী প্রতিনিধি গোলাম ইসাকজাইকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ইসাকজাই আর আফগানিস্তানের প্রতিনিধিত্ব করছেন না। তার জায়গায় সুহাইল শাহিনকে স্থায়ী প্রতিনিধি হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছে তালেবান। সুহাইল শাহিন তালেবানের অন্যতম মুখপাত্র। জাতিসংঘে আফগানিস্তানের আসন পাওয়ার দাবির স্বীকৃতি দেওয়া নিয়ে কাজ করবে চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়াসহ ৯ সদস্যের ক্রেডেনশিয়ালস কমিটি।

চলতি বছরের শেষে এ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্থনিও গুতেরেস বলেছেন, আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেতে চাচ্ছে তালেবান। যা আফগানিস্তানে একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠন ও মানবাধিকারের প্রতি সম্মান দেখাতে তালেবানকে বাধ্য করার সুযোগ হিসেবে দেশগুলো ব্যবহার করতে পারে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.