তালেবানদের যে হুশিয়ারি দিল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া

তা’লেবান ক্ষমতায় আসার পর আফগানিস্তানের শঙ্কায় পড়েন দেশটির নারী ক্রীড়াবিদরা। অবশেষে সেই শঙ্কাই সত্য হলো। অস্ট্রেলীয় সংবাদমাধ্যম এসবিএস নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তা’লেবানের সংস্কৃতিবিষয়ক কমিশনের উপপ্রধান আহমাদুল্লাহ ওয়াসিক জানিয়েছেন, আফগান মেয়েদের ক্রিকেট খেলতে দেবে না তা’লেবান।

যদিও তালে’বানের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে এখনও কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসেনি। তবে তা’লেবান মুখপাত্রের এমন বক্তব্যের পরই উ’দ্বেগ জানিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। আর এমন উদ্বে’গের মধ্যেই তা’লেবান সরকারকে হুম’কি দিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ঘোষণা দিয়েছে— যদি আফগান নারীদের ক্রিকেট খেলা বন্ধ হয়ে যায়, তা হলে আফগান পুরুষ দলের বিপক্ষে তারা এ বছরের পূর্বনির্ধারিত টেস্ট ম্যাচটি খেলবে না।

বিষয়টি নিয়ে ক্ষো’ভ ঝেড়েছেন অস্ট্রেলিয়ার ক্রীড়ামন্ত্রী রিচার্ড কোলব্যাকসহ শীর্ষস্থানীয় রাজনীতিবিদরা। এদিকে আফগানিস্তানে নারীদের খেলাধুলা বন্ধের বিপক্ষে নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। সিএ বলেছে— ‘বিশ্বজুড়েই নারী ক্রিকেটের উন্নয়ন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

আমাদের চোখে ক্রিকেট খেলা সবার জন্য এবং সবস্তরেই নারীদের ক্রিকেট খেলাকে আমরা সমর্থন করি। কিন্তু গণমাধ্যমে প্রকাশিত সাম্প্রতিক খবর অনুযায়ী— আফগানিস্তানের নারীদের ক্রিকেট খেলতে দেবেন না তালেবানরা। আর সেটিই যদি সত্য হয়, তা হলে হোবার্টে আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রতিশ্রুত টেস্ট ম্যাচটি আয়োজন করবে না ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

আমরা অস্ট্রেলিয়ান ও তাসমানিয়ান সরকারকে এ বিষয়ে সমর্থন দেওয়ায় ধন্যবাদ জানাই।’ প্রসঙ্গত চলতি বছরের নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট ম্যাচ খেলার কথা রয়েছে আফগানিস্তান ক্রিকেট দলের। সেই টেস্ট খেলতে রশিদ-নবীদের দলকে অস্ট্রেলিয়া সফরের নিশ্চয়তাও দিয়ে রেখেছে তা’লেবান। তথ্যসূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.