তালেবান হটিয়ে তিন জেলার দখল নিলো বিরোধীরা

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল দখল নিলেও তালেবানের বি’রুদ্ধে লড়াই চা’লিয়ে যাচ্ছে বিরোধী জোট। দেশের সিংহভাগ অঞ্চলে যখন আধিপত্য কায়েম করেছে তালেবান ঠিক তখনই বানু, পোল এ হেসার, দে সালা-বাঘলান উপত্যকার এই তিনটি জেলাকে বিরোধী জোট তালেবান মুক্ত করতে পেরেছে বলে খবর জানিয়েছে ওয়াশিংটন পোস্ট ও নিউজউইক।

তালেবানের সঙ্গে লড়াই করে পাল্টা এই তিন জেলা দখল করতে রক্ত ঝরেছে বিস্তর। স্থানীয় তালেবান বিরোধী কমান্ডাররা দাবি করেছেন, তারা কমপক্ষে ৩০ জন তালেবানকে হ’ত্যা করেছে এবং তাদের হাতে বন্দি রয়েছে ২০ জন।

এক প্রাক্তন আফগান সরকারি উচ্চপদস্থ কর্তাকে উদ্ধৃত করে এক ব্রিটিশ টিভি চ্যানেল প্রতিনিধি তাজউদ্দিন সোরোউস টুইটারে লিখেছেন, স্থানীয় প্রতিরোধ গড়ে উঠেছে বাঘলান এলাকায়। তালিবানের বি’রুদ্ধে ল’ড়া’ই করে বানু ও পোল এ হেসার জেলা দখল সম্ভব হয়েছে। এখন তালিবানবিরোধী যো’দ্ধারা দে সালা জেলার দিকে অগ্রসর হচ্ছেন।

অন্তত৬০ জন তালিবানি এই যু’দ্ধে মা’রা গিয়েছে অথবা আ’হ’ত হয়েছে। এই সংঘ’র্ষের বেশ কয়েকটি ছবিও টুইট করেছেন তিনি। রাজধানী কাবুল থেকে ১০০ মাইল উত্তরে বাগলানের জেলা তিনটির দখল তালেবানের হাতছাড়া হবার পর সেখানকার সরকারি ভবনগুলোতে তালেবানের সাদা রঙের পতাকা সরিয়ে ক্ষমতাচ্যুত সরকারের তিন রঙা পতাকা লাগিয়ে দেয়া হয়।

তালেবানের বি’রুদ্ধে ল’ড়া’ই করা ২৮ বছর বয়সী সেদিকুল্লাহ সুজা বলেন, আমরা দারুণ নায়কোচিত কাজ করেছি। তালেবানের কাছে সাঁজোয়া যান থাকলেও সাধারণ মানুষ পাথর ছুঁ’ড়েই তাদের হ’টি’য়ে দিয়েছে। শুক্রবারের (২০ আগস্ট) এই যু’দ্ধে অংশ নিয়েছিলেন এক সময়কার আফগান সেনা সুজা। তিনি আরও বলেন, জীবন যতদিন থাকবে, তালেবানকে বরদাস্ত করবো না।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.