তৈমুরকে প্রত্যাহার, যা বললেন আইভী

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে লড়ছেন তৈমুর আলম খন্দকার। এ জন্য তাঁকে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক পদ থেকে প্রত্যাহার করেছে কেন্দ্রীয় বিএনপি।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনের বাকি আর মাত্র ১২ দিন। ২৭ ওয়ার্ডে পাঁচ লাখের অধিক ভোটার তাদের পছন্দের প্রার্থীকে বেছে নেবেন আগামী ১৬ জানুয়ারি। মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা প্রতিদিনই ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। দিচ্ছেন নানা উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি। নগরীর সর্বত্রই দেয়ালে ও মাথার ওপর ঝুলছে মেয়র-কাউন্সিলর প্রার্থীদের পোস্টার।

বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাইছেন প্রার্থী ও তাদের প্রতিনিধিরা। অনেক প্রার্থী আবার নিজ লিফলেটের পেছনে ইভিএম ব্যবহারের প্রক্রিয়া চিত্রসহ ছবি ছাপিয়ে দিয়েছেন। যাতে কেন্দ্রে গিয়ে ভোটারদের বিপাকে পড়তে না হয়। নির্বাচনে মূল দুই মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী ও তৈমুর আলম খন্দকারের প্রচারেও ব্যাপক আগ্রহ রয়েছে ভোটারদের মাঝে। বিশেষ করে সচেতন মানুষজন প্রতিদিনই খেয়াল রাখছেন, দুই মেয়র প্রার্থী কী বলছেন?

মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) সকাল ১০ ও বিকাল ৩টায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী নগরীর ১ ও ২নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন। সিদ্ধিরগঞ্জ পুল, ধনুহাজী রোড, আব্দুল আলী, কালুহাজী রোড পাইনাধী নতুন মহল্লা, সিআইখোলাসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করে মানুষের কাছে নৌকায় ভোট চান।

গণমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টার পদ থেকে প্রতিদ্বন্দ্বী তৈমুর আলম খন্দকারকে অব্যাহতি দেওয়া দলটির একটি রাজনৈতিক কৌশল। আইভী বলেন, ‘তিনি (তৈমুর) অন্য প্রার্থীদের মতো আমার একজন প্রতিদ্বন্দ্বী। স্থানীয় সরকারের কাজ সব ধরনেরই চ্যালেঞ্জ থাকে। নির্বাচনটাও একটি চ্যালেঞ্জ।’

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.