দক্ষিণ সাগর নিয়ে আমেরিকাকে ফের হুমকি দিলো চীন

দক্ষিণ চীন সাগরের পানিসীমা নিয়ে আমেরিকার ভূমিকায় বেশ ক্ষুব্ধই হয়েছে চীন। এ নিয়ে দেশটিকে কড়া বার্তা দিয়েছে বেইজিং। চীনের দাবি, ওয়াশিংটন উত্তেজনা উসকে দিচ্ছে, যা আঞ্চলিক শান্তি প্রতিষ্ঠার পথে সবচেয়ে বড় বিপজ্জনক উপাদান।

চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই আসিয়ান জোটের শীর্ষ সম্মেলনে দাবি করেন, দক্ষিণ চীন সাগরে শান্তি ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠা চীনের কাছে কৌশলগত গুরুত্ব বহন করে। এছাড়া, এই অঞ্চলকে ঘিরে আসিয়ানভুক্ত দেশগুলো এবং চীনের অভিন্ন কৌশলগত আকাঙ্ক্ষা রয়েছে।

আশা করবো, এই আকাঙ্ক্ষার প্রতি আমেরিকাসহ সব বহিঃশক্তি সম্মান প্রদর্শন করবে এবং ফায়দা লোটার চেষ্টা বন্ধ করবে। তিনি আরও বলেন, চীনসহ আসিয়ানভুক্ত দেশগুলো যখন সংলাপের মাধ্যমে তাদের পানিসীমা নিয়ে মতবিরোধ নিরসনের চেষ্টা করছে, ঠিক তখনই আমেরিকা এসব দেশের মধ্যে মতবিরোধ উসকে দিচ্ছে।

বেইজিং দক্ষিণ চীন সাগরের বেশিরভাগ অঞ্চলের মালিকানা দাবি করে। সম্পদ-সমৃদ্ধ এ অঞ্চলের মালিকানার অন্যান্য দাবিদার দেশ হচ্ছে ব্রুনাই, মালয়েশিয়া, ফিলিপাইন, তাইওয়ান ও ভিয়েতনাম। মার্কিন সরকার এই দ্বন্দ্বে চীনের কোনো কোনো প্রতিবেশী দেশকে সমর্থন দিচ্ছে। দক্ষিণ চীন সাগর দিয়ে জাহাজ চলাচল থেকে বছরে আয় হয় ৫ ট্রিলিয়ন ডলার।

আন্তর্জাতিক সমুদ্র-সীমায় নৌযান চলাচলের স্বাধীনতা রক্ষার অজুহাত দেখিয়ে আমেরিকা দক্ষিণ চীন সাগরে সামরিক উপস্থিতি জোরদার করছে। চীন এ অঞ্চলে মার্কিন নৌ ও বিমান বাহিনীর সঙ্গে বেইজিংয়ের সংঘাত বেধে যেতে পারে বলে ওয়াশিংটনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে আসছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *