নাজমুল হাসানের স্লোগানে ও আগাম জয়োধ্বনিতে মুখরিত বিসিবি

দুপুর ২টায় বিসিবিতে প্রবেশ করেন নাজমুল হাসান পাপন। গাড়ি থেকে নেমে শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের ২ নম্বর গেট দিয়ে ঢোকেন তিনি। আগে থেকেই উপস্থিত ছিলেন সমর্থকরা। নাজমুল হাসান নামার পরেই তাকে নিয়ে শুরু হয় মিছিল। স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত হয় শের-ই-বাংলা।

এই মিছিল নিয়েই বিসিবিতে ঢুকেন তিনি। আর নিচে চলতে থাকে আগাম জয়োধ্বনি। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালনা পরিষদের নির্বাচন শুরু হয়েছে। বুধবার সকাল ১০টায় বিসিবি কার্যালয়ে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। এবারের নির্বাচনে কোনো প্যানেল না থাকায় মোটামুটি প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস পাওয়া যাচ্ছে।

যদিও বেশ কয়েকটি পদে প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় নির্বাচিত হয়েছেন সাতজন। ভোটগ্রহণ উপলক্ষে বিসিবিতে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। সকাল থেকে প্রার্থীদের ভক্ত সমর্থকরা বিসিবিতে এসে ভিড় জমিয়েছেন। চারপাশে বিভিন্ন মুখোরোচক স্লোগানে মুখরিত হচ্ছে। নিজের পছন্দের প্রার্থীর প্রচারণা করছেন সমর্থকরা।

অনেক প্রার্থী মিছিল নিয়ে ঢুকছেন বিসিবিতে। দুপুর ১২টায় সদ্য সাবেক বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের আসার কথা থাকলেও দুই ঘণ্টা পর এসেছেন। অনেক প্রার্থী একে একে এসে ভোট দিচ্ছেন। আজ সকাল ১০টায় মিরপুর বিসিবি কার্যালয়ের বোর্ড সভাকক্ষে এই ভোটগ্রহণ শুরু হয়। চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

ভোটগ্রহণ শেষে আজই বেসরকারিভাবে জয়ীদের নাম ঘোষণা করা হবে। সরকারিভাবে ঘোষণা হবে বৃহস্পতিবার। বিসিবির পরিচালনা পরিষদে থাকবেন ২৫ পরিচালক। দুজন আসছেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের মনোনয়নে। বাকি ২৩ পদে নির্বাচন হওয়ার কথা।

কিন্তু ক্যাটাগরি-১ (বিভাগ ও জেলা) থেকে এরই মধ্যে সাত কাউন্সিলর বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। ফলে, আজ নির্বাচন হবে ১৬ পদের জন্য। তিনটি ক্যাটাগরি থেকে মোট প্রার্থী ২৩ জন। ১৭১ কাউন্সিলর থাকলেও নির্বাচনে ভোট দেবেন ১২৭ জন।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.