পাকিস্তানের মাটিতে ভারতের সূত্র চলবে না

ক্রিকেট বিশ্বে সাধারণ একটা ধারণা আছে, উপমহাদেশের মাটিতে খেলা মানেই স্পিনারদের জন্য বাড়তি সুবিধা। বাংলাদেশ, ভারত, শ্রীলঙ্কাতে স্পিনারদের দাপটও দেখা যায় বেশি। পাকিস্তানে তুলনামূলকভাবে সেই দাপটটা একটু কম। অস্ট্রেলিয়াকে সে কথাই মনে করিয়ে দিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার বাজিদ খান।

রীতিমতো হুমকির সুরেই বলেছেন, ভারতের মাটিতে স্পিনের ‘সূত্র’ দিয়ে সফলতা পাওয়া গেলেও পাকিস্তানে সেটা সম্ভব নয়।প্রায় ২৩ বছর পর আগামী মার্চে পাকিস্তান সফরে যাওয়ার কথা অস্ট্রেলিয়ার। সফরে তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও টেস্ট সিরিজের পাশাপাশি দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচও খেলবে অস্ট্রেলিয়া।

এই সিরিজ দেখার জন্য মুখিয়ে আছেন ক্রিকেট সমর্থকেরা। দুই দলও সাজাচ্ছে পরিকল্পনা।সাম্প্রতিক সময়ে নিজেদের মাটিতে একটিমাত্র টেস্ট ম্যাচ খেলেছে পাকিস্তান। এক ম্যাচের ভিত্তিতে পরিষ্কার কোনো ধারণা পাওয়া না গেলেও বাজিদ খান মনে করেন, পাকিস্তানে স্পিনারদের তুলনায় পেস বোলাররা বেশি সুবিধা পাবেন।

ক্রিকেট ডটকমের সঙ্গে আলাপকালে এমনটাই বলেছেন বর্তমানে ধারাভাষ্যকার বনে যাওয়া সাবেক এই ক্রিকেটার। বাজিদ খান বলেন, ‘খেলায় দুজন স্পিনার থাকবে এবং এটা পুরোপুরি স্পিনসহায়ক হবে—এই সাধারণ ধারণাটা আমি ভুল মনে করি।

ভারতের মাটিতে ২০১৯ সাল থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত পেস বোলাররা উইকেট পেয়েছেন ১৫০টি ও স্পিনাররা ২৫৮টি। অন্যদিকে পাকিস্তানের মাটিতে ২০১৯ সালের শেষ দিক থেকে আয়োজিত পাঁচ টেস্টে পেসাররা ৩০-এর নিচে গড়ে নিয়েছেন ৮৯ উইকেট, আর স্পিনাররা ৪৮ উইকেট নিয়েছেন প্রায় ৪০ গড়ে।

এই পরিসংখ্যান এবারের সিরিজেও কাজে আসবে মনে করেন বাজিদ খান, ‘পাকিস্তান ভারতের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। স্পিন বল সরাসরি কাজে আসছে না। স্পিনারদের তুলনায় পেসাররা বেশি উইকেট নিচ্ছেন। আপনার দলে যদি দুজন বিশ্বমানের স্পিনার না থাকে, তাহলে আমি মনে করি স্পিনার না খেলানোই ভালো।’

এই পর্যন্ত বলেই থামেননি বাজিদ খান। তিনি সরাসরি বলে দিয়েছেন ‘উপমহাদেশের সূত্র পাকিস্তানে খাটবে না।’দেখা যাক শেষ পর্যন্ত বাজিদ খানের কথা কতটা খাটে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.