পাকিস্তান সিরিজে নেই সাইফ-সাকিব

চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভরাডুবি হয়েছে বাংলাদেশ দলের। হতাশার টুর্নামেন্ট শেষে বাংলাদেশের চোখ এখন পাকিস্তান সিরিজে। আসর শেষ করে সরাসরি ঢাকায় আসবেন বাবর আজম অ্যান্ড কোং। সফরে তিনটি টি-টোয়েন্টি ও দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলবে পাকবাহিনী।

কুড়ি ওভারের তিন ম্যাচে বাংলাদেশ দলে বড় পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিয়েছেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ওই সিরিজে কারা দলে থাকবেন এ নিয়ে যেমন জল্পনা শুরু হয়েছে তেমনি অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে সাকিব আল হাসানকে নিয়ে। আর সাইফউদ্দিনের তো খেলাই হচ্ছে না।

এবারের বিশ্বকাপে দুজনই চোটে পড়েছেন। সাইফের ইনজুরি পিঠে। সাকিবের হ্যামস্ট্রিংয়ের। আজ বাংলাদেশ দল ঢাকায় ফেরার পর বিমানবন্দরে খেলোয়াড়দের ইনজুরি নিয়ে কথা বলেছেন বিসিবি প্রধান চিকিৎসক দেবাশিষ চৌধুরি। সেখানেই আশঙ্কার কথা শোনান তিনি।

দেবাশিষ বলেছেন, ‘পুরোপুরি ফিট হতে সাকিবের অন্তত তিন সপ্তাহ সময় লাগবে। ছয় সপ্তাহ মাঠের বাইরে থাকতে হবে সাইফউদ্দিনকে। সাকিব টেস্ট সিরিজে খেলতে পারেন। তবে নুরুল হাসানের চোট গুরুতর নয়। দ্রুতই সে সুস্থ হয়ে উঠবে।’

বিশ্বকাপে সুপার টুয়েলভের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পিঠে চোট পেয়ে আসর থেকে ছিটকে যান অলরাউন্ডার সাইফ। এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচে সাকিবের হ্যামস্ট্রিংয়ে টান লাগে। ওই ম্যাচটা কোনোরকম খেললেও টুর্নামেন্ট শেষ হয়ে যায় তারও। এর মাঝে ইংল্যান্ডর ম্যাচের অনুশীলন করতে গিয়ে তাসকিন আহমেদের বলে তলপেটে আঘাত পান নুরুল হাসান সোহান।

এ কারণে শেষ দুই ম্যাচে খেলতে পারেননি তিনিও। যদিও আসন্ন পাকিস্তান সিরিজে তাকে নিয়ে কোনো অনিশ্চয়তা নেই। আগামী ১৯, ২০ ও ২১ নভেম্বর মিরপুরে টি-টোয়েন্টি সিরিজের ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে। ২৬ নভেম্বর চট্টগ্রামে প্রথম টেস্ট। ৪ ডিসেম্বর মিরপুরে ফিরতি টেস্ট।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.