পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের বিরোধিতায় আওয়াজ উঠলো খোদ ভারতে

গত বছরের মতো এবারও হঠাৎ বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ার পর দেশে একদিনেই পেঁয়াজের দাম এক তৃতীয়াংশ বেড়ে গেছে। সোমবার ঢাকার খুচরা বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৬০ টাকা দরে বিক্রি হলেও মঙ্গলবার বিক্রি হয়েছে ৯০ থেকে ১০০ টাকা দরে। ভারতের হঠাৎ এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা হচ্ছে বাংলাদেশে।

এমনকি কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করছেন খোদ ভারতেরই অনেকে। ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশের বাজারের পরিস্থিতি সামাল দিতে সোমবার রাতারাতি পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

কিন্তু তার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই ওই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার জন্য কেন্দ্রীয় বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গয়ালকে অনুরোধ জানিয়েছে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী ও ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি)-র প্রধান শরদ পওয়ার। শরদ পওয়ার মতে, এই সিদ্ধান্তে আন্তর্জাতিক বাজারে ভারতের ভাবমূর্তি ধাক্কা খেতে পারে। পাকিস্তান এবং পেঁয়াজ রপ্তানিকারক অন্যান্য দেশ এই সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে পারে বলেও কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কাছে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন শরদ।

পীযূষ গয়ালের সঙ্গে পেঁয়াজের রপ্তানি নিয়ে আলোচনার কথা টুইট করে জানিয়েছেন শরদ। তার দাবি, গয়াল তাকে আশ্বস্ত করেছেন, বাণিজ্য, অর্থ এবং উপভোক্তা বিষয়ক মন্ত্রক ঐকমত্যে পৌঁছলে ওই সিদ্ধান্ত ফিরিয়ে নেয়ার ভাবনা চিন্তা করতে পারে কেন্দ্রীয় সরকার। টুইটেরে শরদ বলেন ‘আন্তর্জাতিক বাজারে পেঁয়াজের ভালো চাহিদা রয়েছে এবং আমরা ধারাবাহিকভাবে তা রপ্তানি করে আসছি, এটা আমি তার (পীযূষ গয়াল) গোচরে এনেছি।

কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারের আচমকা একটা সিদ্ধান্ত আন্তর্জাতিক বাজারে পেঁয়াজের ধারাবাহিক সরবরাহকারী হিসেবে ভারতের ভাবমূর্তিতে জোরালো ধাক্কা দিতে পারে।’ অন্য একটি টুইটে শরদ পওয়ার বলেন, ‘আমি এটাও জোর দিয়ে বলেছি যে, এই সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে পারে পাকিস্তান এবং পেঁয়াজ রপ্তানিকারক অন্যান্য দেশ।’

তার দাবি, কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তে মহারাষ্ট্রের কৃষকদের মধ্যে বিপুল ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। এদিকে, কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধিতা করছে বিভিন্ন কৃষক সংগঠন। সারা ভারত কিসান সভার নেতা অজিত নাভালের মন্তব্য, ‘এই নিষেধাজ্ঞায় কৃষকরা ক্ষুব্ধ এবং তারা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *