প্রচারণায় না নেমেও যত ভোট পেলেন পরীমনি

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে ‘কার্যকরী পরিষদ সদস্য’ পদে হেরেছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা পরীমনি। তিনি পেয়েছেন ৭৯ ভোট। শিল্পী সমিতির নির্বাচনে তিনি ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুন প্যানেল থেকে প্রার্থী হন। তবে পরীমনিকে প্রচারণায় নামতে দেখা যায়নি।

নির্বাচনকে ঘিরে এফডিসি সরগরম থাকলেও সেখানে একবারও দেখা মেলেনি পরীমনির। জানা গেছে, ১১টি কার্যকরী পরিষদ সদস্য পদের বিপরীতে মোট প্রার্থী ছিলেন ২৪ জন। ভোটপ্রাপ্তির দিক দিয়ে পরীমনি ২২তম অবস্থানে রয়েছেন। তার সমান ৭৯টি ভোট পেয়েছেন অভিনেতা শাকিল খানও।

পরীমনি ও শাকিল খানের চেয়ে কম ভোট পেয়েছেন শুধু রবিউল ইসলাম হরবোলা। তিনি পেয়েছেন ৪৭টি ভোট। ঘোষিত ফলাফলে দেখা গেছে, সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে কার্যকরী পরিষদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন জনপ্রিয় নায়ক ফেরদৌস। তিনি পেয়েছেন ২৪০ ভোট। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২২৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন অমিত হাসান।

এছাড়া সমান ২২৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন নায়িকা অঞ্জনা ও মৌসুমী। নির্বাচিত অন্য ৭ সদস্য হলেন- অরুনা বিশ্বাস (১৯২ ভোট), আলীরাজ (২০৩ ভোট), কেয়া (২১২ ভোট), চুন্নু (২২০ ভোট), জেসমিন (২০৮ ভোট), রোজিনা (১৮৫ ভোট), সুচরিতা (২০৮ ভোট)।

এদিকে, শিল্পী সমিতির নির্বাচনে ১৯১ ভোট পেয়ে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মিশা সওদাগর পেয়েছেন ১৪৮ ভোট। ১৭৬ ভোট পেয়ে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন হয়েছে জায়েদ খান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি নিপুন পেয়েছেন ১৬৩টি ভোট।

সহ-সভাপতি পদে ডিপজল (২১৯) ও রুবেল (১৯১), সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে সাইমন সাদিক (২১২) জয়ী হয়েছেন। সাংগঠনিক সম্পাদক হয়েছেন শাহানূর (১৮৪), কোষাধ্যক্ষ হয়েছেন আজাদ খান (১৯৩), দপ্তর সম্পাদক হলেন আরমান (২৩২), সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে জিতেছেন মামনুন ইমন (২০৩), আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে জয়ী হয়েছেন জয় চৌধুরী (২০৫)।

Sharing is caring!