বাংলাদেশে বিশ্বকাপ আয়োজন চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিলো বিসিবি

দীর্ঘদিন হলো বাংলাদেশ বসছে না আইসিসির কোন বড় ক্রিকেট আসর। সর্বশেষে ২০১৪ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করে বাংলাদেশ। এর আগে ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সহ মোট আটটি ম্যাচ আয়োজন করে বাংলাদেশ। তবে এরপর আর বাংলাদেশে কোন ক্রিকেট আসর বসেনি।

তবে আগামী ২০২৪ থেকে ২০৩১ সালের মধ্যে আটটি বড় ক্রিকেট টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল। তাই বাংলাদেশের সামনে এখন একটাই লক্ষ্য এককভাবে একটি বিশ্বকাপ আয়োজন করা। ২০২৪ থেকে ২০৩১ সালের মধ্যে ওয়ানডে বিশ্বকাপ আছে দুটি, ২০২৭ এবং ২০৩১ সালে।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আছে চারটি ২০২৪, ২০২৬, ২০২৮ এবং ২০৩০। এছাড়াও নতুন করে আবারো আয়োজন করা হবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি।দুইটি টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে ২০২৫ এবং ২০২৯ সালে। ক্রিকেটের এসব মেগা আসর হাতছাড়া করতে নারাজ বিসিবি।

সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দীন চৌধুরী বলেন, ‘২০২৪ থেকে ২০৩১ পর্যন্ত আট বছরের আইসিসি প্রতিযোগিতা চূড়ান্ত হয়েছে। পরবর্তী ধাপ হচ্ছে হোস্ট অ্যালোকেশন হবে। আমরাও এতে অংশগ্রহণ করবো। যথাযথ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে হোস্ট অ্যালোকেশন হবে। এটা আমাদের জন্য কিছুটা হলেও স্বত্বির।’

তবে আয়োজক সত্য কিভাবে নির্ধারণ হবে তা এখনও স্পষ্ট করে জানায়নি আইসিসি। কিছুদিন আগে জানা গিয়েছিল বিডিং পদ্ধতিতে স্বাগতিক দেশ চূড়ান্ত করবে আইসিসি। কিন্তু আইসিসির গতকালের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এ পদ্ধতি বাতিল করা হয়েছে। বাছাই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নির্ধারিত হবে বিশ্বকাপের আয়োজক।

বিডিং প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই আয়োজক নির্ধারণ হওয়ার কথা। আইসিসির পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানানোর অপেক্ষায় আমরা।যদি আইসিসি বিডিং প্রক্রিয়া বাতিলও করে থাকে আমরা বিশ্বকাপ আয়োজনের জোর চেষ্টা চালাবো। এক্ষেত্রেও আমাদের সুবিধা হবে। আমাদের সঙ্গে অন্যান্য সকল বোর্ডের সম্পর্ক ভালো। আমরা নিশ্চয়ই সবার সমর্থণ পাবো।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.