বিএনপি নেতার জামিনে আ.লীগের আনন্দ মিছিল!

কুড়িগ্রামের চিলমারীতে ধ.র্ষ-ণ মাম’লায় বিএনপি নেতা রিয়াজুল হক জোদ্দারের জামিনে আনন্দ মি’ছি’ল করেছেন চিলমারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় এলাকা ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, ২৫ জুলাই উপজেলার চিলমারী ইউনিয়নের গাছবাড়ী এলাকায় নৌকায় তুলে স্বামী পরিত্যক্তা এক নারীকে ধ.র্ষ-ণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার বিচারক হিসেবে ঘ’টনা ধা’মাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করায় চিলমারী ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি রিয়াজুল হক জোদ্দারকে ওই ধ.র্ষ-ণ মাম’লায় এজাহারভুক্ত আ’সামি করা হয়।

দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর গত ১৭ সেপ্টেম্বর পুলিশ তাকে’গ্রেফ’তার করে কারা’গারে পাঠায়। মঙ্গলবার তিনি জামিনে মুক্তি পেলে চিলমারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতাকর্মীরা বিএনপি নেতা রিয়াজুল হক জোদ্দারকে ফুলের মালা পরিয়ে আনন্দ মি’ছিল করেন।

আনন্দ মিছিলে অংশ নেন- ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, ৬নং ওয়ার্ড সভাপতি রফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক বকুল মিয়া, ৭নং ওয়ার্ড সভাপতি আকবর আলী, ৮নং ওয়ার্ড সভাপতি চাঁন মিয়া, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলামসহ দলটির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা। ঘটনার পর আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

এ বিষয়ে উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও নয়ারহাট ইউপি চেয়ারম্যান আবু হানিফা বলেন, বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থীকে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান কর্তৃক জামিনে মুক্ত করার বিষয়টি রহস্যজনক। বিষয়টি পার্টির সভায় আলোচনা করে তার বিরুদ্ধে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। চিলমারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান গওছল হক মণ্ডল বলেন, কে কী বলল তাতে যায় আসে না।

রিয়াজুল হক জোদ্দার জামিনে মুক্তি পেলে সবাই তাকে বরণ করেছে, সেখানে কিসের আওয়ামী লীগ, কিসের বিএনপি? উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল বারী সরকার করে বলেন, চিলমারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান গওছল হক মণ্ডল মানবিক কারণে তার জামিনের ব্যবস্থা করেছেন। জামিনে মুক্তির পর নিজ এলাকায় ফিরলে স্থানীয় জনগণ তাকে ফুল দিয়ে বরণ করেন।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.