বিশ্বের সেরার তালিকায় বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

টাইম হায়ার এডুকেশনের (টিএইচই) প্রকাশিত র‌্যাংকিং অনুযায়ী বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর তালিকায় ১০০১ থেকে ১২০০ এর মধ্যে স্থান করে নিয়েছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি)। বাকৃবি ছাড়াও বাংলাদেশের আরও দুটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ঢাবি ও বুয়েট এ তালিকায় স্থান পেয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভোর ৫টায় টাইম হায়ার অ্যাডুকেশনের (টিএইচই) অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে এ তালিকা প্রকাশ করা হয়। ২০১৬-২০ সালের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর গবেষণাকর্ম, শিক্ষা কার্যক্রম, গবেষণাকর্মের সাইটেশন এবং আন্তর্জাতিক দৃষ্টিভঙ্গির মানদণ্ডের ওপর নির্ভর করে টাইমস হায়ার অ্যাডুকেশন তাদের ওয়েবসাইটে বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর এ তালিকা প্রকাশ করে।

২০২১ সালে ৯৩ দেশের প্রায় ১০ হাজার বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে থেকে ১ হাজার ৬৬২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা প্রকাশ করে প্রতিষ্ঠানটি। এ তালিকায় সবার উপরে রয়েছে ইংল্যান্ডের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের এ সাফল্য উদযাপন উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দুপুর ১১টায় এক ওয়েবিনারের আয়োজন করা হয়।

ওয়েবিনারে ইন্টারন্যাশনাল কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স সেলের (আইকিউএসি) পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. তাজউদ্দীনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। অনুষ্ঠানের প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে ছিলেন বাকৃবি ভিসি অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নান, বাকৃবির ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. এমএ সাত্তার মণ্ডল, বাকৃবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাহী সভাপতি হাম্মাদুর রহমান। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. একেএম জাকির হোসেন, প্রক্টর অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মহির উদ্দীনসহ বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আগে শুধু জাতীয় পর্যায়ে সেরা ছিল। এখন আন্তর্জাতিকভাবে সেরা হয়েছে। এজন্য আমরা সবাই গর্ববোধ করছি। কৃষির যে উন্নয়ন ঘটেছে সেটি বঙ্গবন্ধুর হাত ধরেই শুরু হয়েছে। বর্তমান কৃষিতে সেন্সর প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে। এতে ফসলের কতটুকু পানি অথবা সার লাগবে সেটি যন্ত্র বলে দিবে।

পুকুরে মাছের ঘনত্ব, মাছের বৃদ্ধি, খাবারের পরিমাণ নির্ণয় করা যাবে প্রযুক্তির মাধ্যমে। এতে বৃদ্ধি পাবে উৎপাদন, কমবে সময় ও শ্রম। তিনি বলেন, কৃষিকে সম্পূর্ণ প্রযুক্তিনির্ভর একটি শিল্প হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে হবে। ৪র্থ শিল্পবিপ্লবে প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে কৃষি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এজন্য সবাইকে প্রযুক্তি ব্যবহারে আগ্রহী করে তুলতে হবে। কৃষকের সবার হাতে হাতে প্রযুক্তি তুলে দিতে হবে।

এ বিষয়ে বাকৃবি ভিসি অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান বলেন, এ সাফল্যে আমরা উচ্ছ্বসিত। আগামীতে বিশ্বের সেরা ৫০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে স্থান করে নিতে আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। উল্লেখ্য, বিশ্বজুড়ে যে কয়েকটি প্রতিষ্ঠান বিশ্ববিদ্যালয় র‌্যাংকিং প্রকাশ করে থাকে তাদের মধ্যে টাইমস হায়ার অ্যাডুকেশন, কিউএস এবং সাংহাই গ্লোবাল র‌্যাংকিংয়ের ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে।

টাইমস হায়ার অ্যাডুকেশন ছাত্র, শিক্ষক, গবেষক, কার্যনিবাহী, পলিসি মেকার কর্তৃক সর্বাধিক গ্রহণযোগ্য ও সবচেয়ে প্রভাবশালী র‌্যাংকিং প্রকাশিত প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশ সরকারও বিভিন্ন স্কলারশিপ যেমন- প্রধানমন্ত্রী ফেলোশিপে একমাত্র টাইমস হায়ার অ্যাডুকেশনের র‌্যাংকিংকেই বিবেচনায় নিয়ে থাকে।

Sharing is caring!