বিয়ের দাওয়াত খেয়ে হাসপাতালে অর্ধশতাধিক

ফেনীর সোনাগাজীতে বিয়ের দাওয়াত খেয়ে খাদ্যে বি’ষক্রি’য়ায় ১২০ জন অসুস্থ হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার মঙ্গলকান্দি ইউনিয়নের আকিলপুর গ্রামে শুক্রবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। অসু’স্থদের মধ্যে ৫০ জনকে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বাকিরা বাড়িতে ও বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। অসুস্থ ভর্তিকৃতদের মধ্যে ৫ জন অ’ন্তঃস্ব’ত্ত্বা নারী, ১০ জন শিশু, ২০ জন বৃদ্ধ, ৫ জন বৃদ্ধা ও ১০ জন যুবক। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, এলাকাবাসী ও বর-কনের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার দুপুরে উপজেলার মতিগঞ্জ ইউনিয়নের সুলাখালী গ্রামের আবুল মালেকের ছেলে আমিনুল ইসলামের সঙ্গে মঙ্গলকান্দি ইউনিয়নের আকিলপুর গ্রামের এরশাদ উল্যাহর কন্যা রিয়া আক্তারের বিয়ের আয়োজন করা হয়।

বিয়ে বাড়িতে ১৫০ জন বরযাত্রী ও কনে পক্ষের লোকজনসহ দুপক্ষের প্রায় ৩০০ জন লোককে দুপুরের খাবার খাওয়ানো হয়। এতে দুপুর গড়িয়ে বিকেল থেকে অধিকাংশ লোকের পেট ব্যথা ও ডায়’রিয়া শুরু হয়। শুক্রবার রাতে ডা’য়রিয়া ও পেট ব্য’থায় গুরু’তর অ’সুস্থ সিরাজুল ইসলাম, প্রিয়া আক্তার, আংকুরের নেছা, কোহিনূর রৌশন আরা, এরশাদ উল্যাহ, জাহানারা বেগম, মো. এয়াছিন, আয়েশা আক্তার,

ইভা আক্তার, রবিউল হক, রিমা আক্তার, সাব্বির আহমেদ, জেরিন আক্তার, মো. সজিব, হেলাল উদ্দিন, মুন্নী আক্তার, জসিম উদ্দিন, জহিরুল ইসলাম, নূরনবী, পলাশ ও আবুল কাসেমসহ ৫০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরিবহন ধর্মঘটের কারণে গাড়ি না থাকায় অনেক কষ্টে তাদেরকে নিজ নিজ বাড়ি থেকে পিকআপের পাটাতনে শুয়ে হাসপাতালে নেয়া হয়।

মঙ্গলকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খাদ্যে বি’ষক্রি’য়ায় দুইপক্ষের প্রায় ১২০ জন লোক অ’সুস্থ হওয়ার খবর পেয়েছি। কনের বাবার সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি বলেন, বাবুর্চির কথামত পণ্য কিনে খাবারের আয়োজন করেছি। তারপও খাদ্যে বি’ষক্রি’য়ার তিনি সহ অনেকগুলো লোক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. উৎপল দাশ বলেন, খাদ্যে বি’ষ’ক্রি’য়ায় আক্রান্ত বেশকিছু লোক সোনাগাজী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। বেশ কয়েকজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফেনী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বরের মামা দুলাল হোসেন ভাগ্নের বিয়ের অনুষ্ঠানে দাওয়াত খেয়ে উভয়পক্ষের প্রায় ১২০ জন লোক অসুস্থ হওয়ার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। কনের বাবার ব্যবহৃত মুঠোফোনে কল দিলে তার মা ফোন রিসিভ করে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.