ব্রাজিল ফুটবল দলের সঙ্গে কোহলিদের তুলনা করলেন কোচ

রবি শাস্ত্রীর বিদায় ঘণ্টা বেজেছে। আগামী মাসে শুরু হতে চলা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শেষ হতেই ভারত জাতীয় দলের প্রধান কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়াবেন তিনি। তবে তার আগে কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালনে নিজের সেরাটাই দিয়েছেন বলে দাবি করেছেন তিনি। সম্প্রতি ভারতীয় গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন শাস্ত্রী।

তিনি জানান, ‘কোচ হিসেবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপই আমার শেষ টুর্নামেন্ট। আসলে কোচ হিসেবে আমি যা চেয়েছি, সেটাই পেয়েছি। স্বস্তির ঢেকুর তুলে তিনি বলে, ‘পাঁচ বছর ধরে টেস্টে এক নম্বর দল হিসেবে রয়েছি। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে দুইবার টেস্ট সিরিজ জিতেছি। ইংল্যান্ডেও টেস্ট জিতেছি।

অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে হারানো, করোনা পরিস্থিতিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে সাদা পোশাকে সিরিজে এগিয়ে থাকা আমার কাছে বড় প্রাপ্তি। ছেলেরা যে আগ্রাসী মানসিকতা নিয়ে লর্ডস এবং ওভালে খেলেছে, সেটা আমার কাছে বিশেষ।’

১৯৮১ থেকে ১৯৯২ সাল পর্যন্ত ভারতের হয়ে খেলেছেন। জাতীয় দলের জার্সিতে ৮০ টেস্ট ও ১৫০ ওয়ানডে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে তার। দুই ফরম্যাটে প্রায় সাত হাজার রান রয়েছে তার। উইকেট তুলেছেন ২৮০টি। ২০১৭ সালে বিরাট কোহলি-রোহিত শর্মাদের হাল ধরেন তিনি।

১৯৮৪ সালে বিশ্বকাপ জয়ী এই অলরাউন্ডারের চোখে টিম ইন্ডিয়ার দায়িত্ব নেয়া অনেকটা ব্রাজিল ও ইংল্যান্ডের ফুটবলারদের কোচিং করানোর মতো। শাস্ত্রী মনে করেন, এই দলগুলোর প্রতি মানুষের অনেক আগ্রহ। তাই বাড়তি চাপ থাকে। ভালো ফল না করতে পারলে প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়।

‘এই দলটা সব পরিস্থিতির মধ্যে জয় পেতে চেয়েছে। তাও মনে হয়েছে আমি ভারত নয়, ব্রাজিল অথবা ইংল্যান্ডের ফুটবল দলকে কোচিং করাচ্ছি। সব সময় যেন একটা বন্দুক তাক করা রয়েছে আমার দিকে। টানা ছয় মাস ভাল খেলেছি। অ্যাডিলেড টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ৩৬ রানে অলআউট হয়ে যাই।

আমাদের বিরুদ্ধে গুলি করা শুরু হলো। এখানে প্রতিটা ম্যাচই জিততে হবে। না হলেই সবাই গিলে খেয়ে ফেলবে।’ ৫৯ বছর বয়সী এই কোচের স্বপ্ন আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ের। ‘সাদা বলের ক্রিকেটে আমরা প্রতিটা দেশকে তাদের ঘরের মাঠে হারিয়েছি।

যদি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতি, তা হলে সেটা আমার জীবনের দারুণ ব্যাপার হবে। এর বেশি কিছু চাওয়া নেই। আমি একটা জিনিসে বিশ্বাস করি বেশি দিন একটা জায়গায় থাকা ঠিক নয়। আমি মনে করি, যা চেয়েছিলাম, তার থেকে বেশিই পেয়েছি।’ যোগ করেন শাস্ত্রী।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.