ভারতের বিপক্ষে ঘোষিত শক্তিশালী বিশ্ব একাদশে ১ বাংলাদেশী

আইপিএলে কিছু দিন আগে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে চার ম্যাচের টেস্ট খেলেছিল ভারত। সিরিজের প্রথম ম্যাচ হারলেও দ্বিতীয় টেস্ট জিতে সিরিজে ফিরেছে বিরাট কোহলির দল। ভারতকে তাদের মাটিতে হারানো যেকোনো দলের জন্যই স্বপ্নের মতো হয়ে গেছে।

ভারত নিজেদের ঘরের মাঠে প্রায় অপরাজেয় হয়ে গেছে। ভারতে সর্বশেষ ২০১২ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৪ ম্যাচের সিরিজ ২-১ ব্যবধানে সিরিজ হেরেছিল কোহলিরা। এই সময়ের মধ্যে ভারতকে তাঁদের মাটিতে হারিয়েছে কেবল অস্ট্রেলিয়া আর ইংল্যান্ড।

২০১৭ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৩৩৩ রানে হেরেছিল ভারত। আর কদিন আগে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২২৭ রানের ব্যবধানে হেরেছে কোহলির দল। ক্রিকেটের জনপ্রিয় পোর্টাল ইএসপিএন ক্রিকইনফো বর্তমানে খেলে যাওয়া ক্রিকেটারদের নিয়ে এমন একটি বিশ্ব একাদশ দিয়েছে যারা ভারতের মাটিতে টেস্ট সিরিজ জিততে পারে।

সেখানে দ্বাদশ ক্রিকেটার হিসেবে রাখা হয়েছে টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে। এই দলের ওপেনার হিসেবে রাখা হয়েছে টম লাথাম এবং আজহার আলীকে। ওয়ান ডাউন ব্যাটসম্যান হিসেবে বিবেচনায় ছিলেন পাকিস্তানের টেস্ট অধিনায়ক বাবর আজম।

তবে ভারতের বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতা না থাকায় তাঁকে রাখা হয়নি দলে। অন্যদিকে কেন উইলিয়ামসন ভারতের বিপক্ষে ২০১০ সালে অভিষেকেই সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন। তাই তাঁকে রাখা হয়েছে এই দলে।

মিডল অর্ডারে রাখা হয়েছে কদিন আগেই ভারতের বিপক্ষে ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকানো জো রুট আর অজি ব্যাটসম্যান স্টিভেন স্মিথ। দলটিতে অলরাউন্ডার হিসেবে বিবেচনায় ছিলেন বেন স্টোকস, সাকিব আল হাসান এবং জেসন হোল্ডার।

ভারতের বিপক্ষে সার্বিক পারফরম্যান্স বিবেচনায় জেসন হোল্ডারকে একাদশে রাখা হলেও সাকিবকে রাখা হয়েছে দ্বাদশ ক্রিকেটার হিসেবে। এ ছাড়া উইকেটরক্ষক হিসেবে জায়গা পেয়েছেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। বোলিং আক্রমণে অস্ট্রেলিয়ার প্যাট কামিন্সের সঙ্গে রাখা হয়েছে ইয়াসির শাহ, নাথান লায়ন এবং শাহীন আফ্রিদিকে।

ভারতকে ঘরের মাঠে হারাতে পারে এই একাদশ: টম লাথাম (নিউজিল্যান্ড), আজহার আলী (পাকিস্তান), কেন উইলিয়ামসন (নিউজিল্যান্ড), জো রুট (ইংল্যান্ড), স্টিভেন স্মিথ (অস্ট্রেলিয়া), জেসন হোল্ডার (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), মোহাম্মদ রিজওয়ান (পাকিস্তান), প্যাট কামিন্স (অস্ট্রেলিয়া), ইয়াসির শাহ (পাকিস্তান), নাথান লায়ন (অস্ট্রেলিয়া), শাহীন শাহ আফ্রিদি (পাকিস্তান) ও সাকিব আল হাসান (দ্বাদশ ক্রিকেটার, বাংলাদেশ)

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.