মঙ্গলের পর এবার শুক্র গ্রহে জোড়া অভিযানের ঘোষণা নাসার

চাঁদ, মঙ্গলের পর এবার শুক্রগ্রহে জোড়া অভিযানের ঘোষণা দিল মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। ২০২৮ থেকে ২০৩০ সালের মধ্যে এ দুটি অভিযান পরিচালনা করা হবে বলে জানিয়েছে তারা।এতে দূরত্ব বিচারে পৃথিবীর সবচেয়ে কাছের এ গ্রহটির ইতিহাস ও বায়ুমণ্ডল সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করা হবে।

এরইমধ্যে প্রতিটি অভিযানের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ৫০ কোটি মার্কিন ডলার।বুধবার (২ জুন) এক বিবৃতিতে এ ঘোষণা দেন নাসার পরিচালক বিল নেলসন।নাসা জানায়, শুক্র গ্রহ অভিযানকে দুই ভাগে ভাগ করা হয়েছে। প্রথমভাগে শুক্রের পরিবেশ ও বায়ুমণ্ডল সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করা হবে।

আর দ্বিতীয় ভাগে সংগ্রহ করা হবে গ্রহটির ভূতাত্ত্বিক অবস্থা বিষয়ক তথ্য।নাসার পরিচালক বিল নেলসন বলেন, অভিযানের প্রথম ধাপের নাম দেওয়া হয়েছে ভেরিটাস আর দ্বিতীয় ধাপের নাম হয়ে দাভিঞ্চি প্লাস। এ দুটি ধাপে শুক্রের বাহ্যিক পরিবেশ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ ও পর্যালোচনার পাশাপাশি গ্রহটির উদ্ভব,

বিকাশ এবং ঠিক কী কারণে এটি পৃথিবী থেকে এত ভিন্ন তা জানার চেষ্টা করা হবে। গ্রহটিতে কখনও সমুদ্র বা পানির কোনো উৎস ছিল কি না তাও গবেষণা করা হবে।শুক্র সৌরজগতের উষ্ণতম গ্রহ। এর উপরিভাগের তাপমাত্রা ৫০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

উচ্চ তাপমাত্রা ও এর বায়ুমণ্ডলে ঘন মেঘ থাকার কারণে শুক্রকে মেঘে ঢাকা নরকও বলে থাকেন অনেকে। তবে বিজ্ঞানীদের ধারণা, শুক্রে একসময় সমুদ্র ছিল। তাই এ গ্রহে কোনো এক সময় প্রাণের অস্তিত্ব ছিল বলে আশাবাদী তারা।

গেল ৩০ বছরেরও বেশি সময় ধরে শুক্র গ্রহে কোনো অভিযান চালায়নি নাসা। সবশেষ ১৯৯০ সালে পৃথিবীর সবচেয়ে কাছের প্রতিবেশী এ গ্রহটিতে অভিযান পরিচালনা করেছিল সংস্থাটি।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.