মাত্র ২০ মিনিটেই মিলছে করোনা টেস্টের রিপোর্ট!

নতুন পদ্ধতিতে করো’নাভাই’রাস টেস্ট শুরু করেছে যুক্তরাজ্য। মাত্র ২০ মিনিটের মধ্যেই মিলবে এই করো’না টেস্টের রিপোর্ট। বৃহস্পতিবার করো’না প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক। তিনি বলেন, এ পরীক্ষার জন্য নমুনা ল্যাবে পাঠানোর প্রয়োজন হবে না।

সুতরাং আপনি স্পটে বসেই মাত্র ২০ মিনিটের মধ্যে ফলাফল পেয়ে যাবেন। ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও জানান, স্বল্পসময়ে করো’না টেস্টের এ প্রক্রিয়া প্রাথমিক ট্রায়ালে কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে। এবার বৃহদাকারে ব্যবহারে এর ফলাফল কেমন আসে তা জানার চেষ্টা চালাচ্ছে ব্রিটিশ সরকার।

হ্যানকক বলেন, যদি এতে কাজ হয়, তবে যত দ্রুত সম্ভব আমরা গণহারে এই টেস্ট শুরু করবো। ২০ মিনিটে করো’না টেস্টের এই ট্রায়াল পরিচালনা করছে ব্রিটিশ কোম্পানি অপটিজেন।

আরো পড়ুন:- বন্যপ্রাণী শি’কার-বাণিজ্যে জড়িতদের শাস্তি দেবে চীন: ধারণা করা হয়, বিশ্বব্যাপী মহামারী করো’নাভাই’রাসটি বাদুড় থেকে মানুষের মধ্যে সং’ক্রমি’ত হয়েছে। এর মধ্যে এই ভাই’রাস পৃথিবীজুড়ে তিন লাখ ৩৩ হাজারেরও বেশি মানুষের প্রা’ণ কেড়ে নিয়েছে। কো’ভিড-১৯ সং’ক্রম’ণের শুরুতেই উহানের সেই বাজারটি আলোচনায় আসে এবং চীনা নাগরিকদের দেশি বিদেশি বন্যপ্রাণী খাওয়ার যে ঐতিহ্য, তা চরমভাবে সমালোচিত হয়।

অবৈধভাবে বন্যপ্রাণী শি’কার ও বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িতদের কঠোর শা’স্তি দেবে চীন। শুক্রবার সরকারি একটি প্রতিবেদন থেকে বিষয়টি জানা যায়। বিবিসি জানায়, করো’না সং’ক্রম’ণ রোধে ফেব্রুয়ারি থেকে বন্যপ্রাণীর ব্যবসা সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ করে চীনা সরকার। এখন সেটি স্থায়ীভাবে করা হচ্ছে।

নতুন প্রস্তাবিত আইনটি এখনও খসড়া হিসেবে আছে। শিগগিরই আইনপ্রণেতাদের সামনে সেটি হাজির করা হবে। বন্যপ্রাণী শি’কার ও বাণিজ্য রোধে এই আইনে কঠোর শাস্তি প্রস্তাব করা হয়েছে। দেশটির হুবেই প্রদেশের উহান শহরের একটি প্রাণী বেচাকেনার মার্কেট থেকে নভেল করো’নাভাই’রাসের উৎপত্তি হয়েছে, এমন প্রবল বিশ্বাস অনেক বিশেষজ্ঞের।

এ ছাড়া অবৈধ বন্যপ্রাণী বাণিজ্য বন্ধ করতে চীনের কৃষকদের নগদ অর্থ সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছে দেশটির সরকার। এই জন্য বিদেশি প্রাণী লালনপালন বা উৎপাদণের প্রক্রিয়া থেকে সরে আসতে হবে। ইতিমধ্যে দেশটির প্রধানতম দুইটি প্রদেশ এমন পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে। বিদেশি বন্যপ্রাণী চাষ ও লালনপালন থেকে সরে আসতে কৃষক ও খামারীদের চা ও ভেষজ ওষুধ উৎপাদনে সহায়তা করবে হুনান ও চিয়াংসি কর্তৃপক্ষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *