মায়ের দেনা শোধ করতে বক্সিং রিংয়ে ৯ বছরের শিশু, জিতেছে ৮০ শতাংশ ম্যাচ!

থাইল্যান্ডে মায়ের দেনা শোধ করতে বক্সিং রিংয়ে নেমেছে ৯ বছরের শিশু। নাম তার ‘টাটা’। ধরা দিয়েছে সাফল্যও। ৮০ শতাংশ ম্যাচেই জয়ী এই লিটল চ্যাম্প। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শিশুদের এমন বক্সিং প্রতিযোগিতায় রয়েছে মানসিক ভারসাম্য হারানোর ভয়।

নাম টাটা, বয়স মাত্র ৯। এ বয়সেই ব্যাংককের ‘বক্সিং রিং’ কাপিয়ে বেড়াচ্ছে এই থাই শিশু। করোনায় অভুক্ত পরিবারের মুখে খাবার তুলে দিতেই বাধ্য হয়ে নাম লেখান বক্সারের খাতায়। এ পর্যন্ত ২০ ম্যাচের ১৫ টিতেই প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করেছেন লিটল চ্যাম্প। প্রতিযোগিতা থেকে অর্জিত অর্থ দিয়ে মিটিয়েছেন মায়ের দেনা।

টাটার মা জানান, ছেলের বক্সিংয়ের টাকা দিয়েই এখন আমার সংসার চলে। শেষ ম্যাচ জিতে যে টাকা সে পেয়েছে তা দিয়েও দেনা পরিশোধ করেছি। টাকার যোগ বিয়োগ না বুঝলেও মাকে সুখে রাখতে বক্সিং চালিয়ে যেতে চায় এই ক্ষুদে বক্সার।

থাইল্যান্ডে এমন ক্ষুদে বক্সারের সংখ্যা ৩ লাখের বেশি। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই বয়সে বক্সিং রিংয়ে নামা শিশুদের মানসিক ভারসাম্য হারানোর ঝুঁকি প্রায় শতভাগ। এর আগে ২০১৮ সালে থাইল্যান্ডে বক্সিং ম্যাচ চলাকালীন মাথায় আঘাত পেয়ে মারা যায় ১৩ বছর বয়সী এক বক্সার।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.