মির্জা ফখরুলকে গ্রেফতারের দাবি

স্বাধীন দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযো’দ্ধারা। আমরা অনেক মুক্তিযো’দ্ধাকে হারিয়েছি, যারা হাসিমুখে জীবন উৎসর্গ করেছেন বাঙালি জাতির স্বাধীনতার জন্য। অনেকে পঙ্গুত্ব বরণ করেছেন। সম্প্রতি বীর মুক্তিযো’দ্ধাদেরকে অবমাননা ও মুক্তিযু’দ্ধের ইতিহাস বিকৃতির অভিযোগে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে গ্রে’ফতার ও আ’গুনে পু’ড়িয়ে মানুষ হ-ত্যার অ’পরাধে বিএনপিকে নিষিদ্ধের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ মুক্তিযু’দ্ধ মঞ্চ।

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এই কর্মসূচি পালন করা হয়। মুক্তি’যু’দ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুলের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো: আল মামুনের সঞ্চালনায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের উপদেষ্টা মুক্তিযো’দ্ধা রুহুল আমিন মজুমদার, মুক্তিযোদ্ধা জহির উদ্দিন ওরফে বিচ্ছু জালাল প্রমুখ।

মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, বিগত ২০১৪ ও ২০১৮ সালে স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি বিএনপি-জামাত সমগ্র দেশে আগুন সন্ত্রাস চালিয়ে নিরীহ মানুষদেরকে আ’গু’নে পু’ড়িয়ে হ-ত্যা করে বাংলাদেশকে ব্যর্থ ও অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করার চেষ্টা করেছিল। বিএনপি-জামাতের এসব সন্ত্রাসীদের বিশেষ ট্রাইবুনালে বিচার করতে হবে। আর রাজাকার পুত্র মির্জা ফখরুলকে গ্রেফ’তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

আল মামুন বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল সম্প্রতি খালেদা ও তারেককে মুক্তিযো’দ্ধা হিসেবে আখ্যা দিয়ে বীর মুক্তিযো’দ্ধাদেরকে চরমভাবে অবমাননা করেছেন। এজন্য মির্জা ফখরুলকে দ্রুত গ্রে’ফতারের দাবি জানাচ্ছে বাংলাদেশ মুক্তিযু’দ্ধ মঞ্চ।

২৪ ঘণ্টার মধ্যে মির্জা ফখরুল তার বক্তব্য প্রত্যাহার না করলে মুক্তিযো’দ্ধাদের সঙ্গে নিয়ে তাকে যেখানে পাওয়া যাবে, সেখানেই প্রতিহত করা হবে। একইসঙ্গে দ্রুততম সময়ের মধ্যে আগুন সন্ত্রাসের অপরাধে বিএনপির রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন বাতিল করতে হবে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.