মুসলমানদের দেশে ইসলাম বিদ্বেষী কথা বলার দুঃসাহস দেখাবেন না!

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে, এমনকি গণমাধ্যমেও বোরকা-হিজাব-নিকাব পরিহিত মা ও পাঞ্জাবি-পায়জামা পরিহিত ছেলের ক্রিকেট খেলার একটি ছবি নিয়ে বেশ আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে। মূলত কথিত নারীবাদি ও ধর্মনিরপেক্ষতাবাদে বিশ্বাসীরা মা ও ছেলের ইসলামী পোশাক নিয়ে আপ’ত্তি তুলেছে।

নিজেদেরকে মু’ক্তমনা দাবি করলেও তারা এখানে ইসলামী পোশাকের বি’রোধিতার পাশাপাশি ইসলাম ধর্ম ও মুসলমানদেরকে আ’ক্রমণ করতেও দ্বি’ধাবোধ করছে না। এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের মতামত দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর। পাঠকদের জন্য ভিপি নূরের পোস্টটি হুবুহু তুলে ধরা হল-

প্রত্যেক ধর্মেরই কিছু নির্দিষ্ট বিধি-বিধান রয়েছে। ধর্মীয় বিষয়ে ভালোভাবে না জেনে তথাকথিত পন্ডিতি না করাই উত্তম। প্রত্যেক ধর্মই মানুষকে বিনয়ী, পরোপকারী হতে শেখায়, কল্যাণের কথা বলে, সৎপথে চলতে নির্দেশ দেয়। ইসলামী মূল্যবোধ সম্পন্ন পৃথিবীর কোন মানুষের কাছে এ পোষাক ব্য’ঙ্গোক্তি বা ক’টাক্ষের নয়। বরং ইসলামে পর্দার বিধান থাকায় এ পোষাক সকলের কাছেই প্রশংসনীয়।

এই নারীর এ বেশভূষাকে যারা আফগান, পকিস্তান বলে কটা’ক্ষ করছে হয় তারা অসুস্থ মান’সিকতার,না হয় ইসলাম বি’দ্বেষী।৮৮.৪% মুসলমানদের দেশে ইসলাম বি’দ্বেষী কথা-বার্তা বলার দুঃসাহস দেখাবেন না। এদেশের সংবিধান সকলেরই ধর্মীয় স্বাধীনতা দিয়েছে। সুতরাং প্রত্যেকেরই তাদের ধর্মীয় রীতি-নীতি পালন করার অধিকার রয়েছে। বি’দ্বেষ নয়, সহি’ষ্ণুতা, সম্প্রীতিই পারে মানবিক সমাজ গড়তে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*