মেসি-নেইমার-এমবাপ্পেই ডুবিয়েছে পিএসজিকে

এমএনএম ত্রয়ীর (মেসি-নেইমার-এমবাপ্পে) সামনে হাঁটু কাঁপবে প্রতিপক্ষের। ডি-বক্স সামলাতে খাবে হিমশিম। স্বাভাবিকভাবে সবাই ধরে নিয়েছিল এমনটাই। কিন্তু ইউরোর শ্রেষ্ঠত্বের মঞ্চ চ্যাম্পিয়ন্স লিগে প্যারিসের জায়ান্ট ক্লাব পিএসজির শুরুটা হয়েছে দুঃস্বপ্নের মতো।

প্রথম চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপার জন্য মরিয়া নাসের আল খেলাইফির পিএসজি লিওনেল মেসিকে দলে ভেড়ানোর পর অনেকেই বলেছিলেন তাদের সামনে ইউরোপের বড় বড় দলগুলো দাঁড়াতেই পারবে না। এতসব আলোচনার পর ক্লাব ব্রুগের বিপক্ষে এবারের মৌসুমে নিজেদের উদ্বোধনী ম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করার পর দলের তিন তারকাকে নিয়ে অনেক সমালোচনা হচ্ছে।

ক্লাব ব্রুগের বিপক্ষে বুধবারের (১৫ সেপ্টেম্বর) ম্যাচে পিএসজির হয়ে একমাত্র গোলটি করেন অচেনা আন্দ্রে হেরেরা। পুরোপুরি ব্যর্থ পাদপ্রদীপের আলোয় থাকা মেসি-নেইমাররা। আর এরপরই সমালোচনার জোয়ার উঠেছে ফরাসি মিডিয়াগুলোতে।

এল একুইপ যেমনটা বলেছে, ম্যাচ জেতাতে নেইমার এবং মেসিরা কোনো সাহায্যই করতে পারেনি। এদিকে, ফুটবল ধারাভাষ্যকার ওমর ফনসেকা বলেন, আক্রমণভাগে যদি দলের তিন ফরোয়ার্ডকে (মেসি-নেইমার-এমবাপ্পে) খেলানোর পরিকল্পনা থাকে, তবে কোচ পচেত্তিনোকে অবশ্যই রক্ষণভাগ নিয়েও ভালোভাবে ভাবা উচিত ছিল।

এই ধারাভাষ্যকার আরও বলেন, ‘বার্সেলোনায় মেসি যে কৌশলে খেলেছে, এখানেও একই কৌশলে খেলবে এমন চিন্তা করে থাকলে বোকামিই হবে। পিএসজি ম্যানেজারের উচিত, দলের তিন তারকাকে নিয়ে ভিন্ন কৌশলে চিন্তা করা।’ তিনি বলেন, ‘দলের সেরা তারকা মেসির উচিত ছিল বল নিয়ন্ত্রণে রেখে মাঠে আধিপত্য বজায় রাখা। কিন্ত তেমনটা দেখা না যাওয়ায় হতাশ হতে হয়েছে।

ধারাভাষ্যকার ওমর ফনসেকা সমালোচনা করলেও ভালো করার উপায়ও বাতলে দিয়েছেন। বলেন, মেসি-নেইমার-এমবাপ্পে একসঙ্গে খেলা মানে বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী আক্রমণভাগ। তাদের উচিত আরও ভালোভাবে তৈরি হয়ে মাঠে নামা। এদিকে, রিয়াল মাদ্রিদ ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক ইংলিশ ফুটবলার মাইকেল ওয়েনের মতে, মেসি পিএসজিতে যাওয়ায় ফরাসি ক্লাবটি আরও দুর্বল হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘পিএসজির এই আক্রমণভাগ নিঃসন্দেহে ফেনোমেনাল। কিন্তু তাদের একসঙ্গের রসায়ন দলকে আরও দুর্বল করেছে। জানি না কেন তাদের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ফেবারিট মনে করা হচ্ছে। আমি মনে করি ইউরোপ মঞ্চে ইংলিশ দলগুলো, চেলসি, ম্যানচেস্টার সিটি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও লিভারপুল পিএসজির চেয়েও এগিয়ে ও শ্রেষ্ঠ।’

ইংল্যান্ডের হয়ে ৮৯টি ম্যাচে খেলা এই ফরোয়ার্ড আরও বলেন, ‘ মেসি পিএসজির জন্য গুরুত্বপূর্ণ। তবে এ মৌসুমে দলে যোগ দেওয়া অন্যদের মধ্যে বরং জিয়ানলুইজি দোন্নারুমা, আশরাফ হাকিমি, সার্জিও রামোসরাই চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও লিগ ওয়ান জেতানোর ক্ষেত্রে এগিয়ে।’

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.